‘ওরা মোবাইল ফোন নিল, কোপও দিল’

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘টেলি হিল’ নামের একটি উঁচু পাহাড়ে বেড়াতে গিয়ে ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন দুই ছাত্র। এ সময় ছিনতাইকারীদের দা’র কোপে একজন মাথায় গুরুতর আঘাত পেয়েছেন। বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইয়ের শিকার দুই ছাত্রের নাম শাহাদাত হোসেন রিফাত ও আবু সুফিয়ান। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। এদের মধ্যে ছিনাতইকারীরা কোপ দিলে আবু সুফিয়ানের মাথায় আঘাত পান। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় চিকি‍ৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসা নিয়েছেন। তার মাথায় পাঁচটি সেলাই দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে একদল শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদ ঝুপড়ির সামনে অবরোধ করে। গাড়ি আটকে যাওয়ায় এ সময় ভোগান্তিতে পড়েন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

টেলি হিল পাহাড়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের পাশে অবস্থিত। ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এ পাহাড়ে যেতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিষেধাজ্ঞা জারি আছে। পাহাড়টিতে ওঠার মুখেই নিষেধাজ্ঞার একটি নোটিশও রয়েছে।

ছিনতাইয়ের শিকার শাহাদাত হোসেন রিফাত বলেন, ‘ক্লাস শেষ হলে আমরা দুজন ওই পাহাড়ে ঘুরতে যাই। পাহাড়ে উঠার সঙ্গে সঙ্গে দুজন ছিনতাইকারী এসে আমাদের মুঠোফোন দুটি কেড়ে নেয়। পরে তারা আমাদের ব্যাগও কেড়ে নিতে চাইল। এ সময় ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে সুফিয়ানের মাথায় ও আমার পিঠে কোপ দেয় ছিনতাইকারীরা। তবে আমার পিঠে ব্যাগ থাকায় আমি বেঁচে যাই। পরে আমি দৌড়ে পাহাড় থেকে একটু নিচে নেমে বন্ধুদের ডাক দিলে ছিনতাইকারীরা পাহাড়ের পেছন দিক দিয়ে পালিয়ে যায়। ওরা আমাদের মুঠোফোন নিল ও কোপও দিল-মানতে পারছি না।’

‘পাহাড়টি ঝুঁকিপূর্ণ ছিল তা আমার জানা ছিল না। এক বন্ধু নিষেধও করেছিল। কিন্তু কৌতূহল বশত ঘুরতে গিয়েই বিপদে পড়লাম।’ যোগ করেন শাহাদাত হোসেন রিফাত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আনোয়ার হোসেন চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, ‘পাহাড়ের ওপর নিরাপত্তা দেওয়া তো অসম্ভব। তাই পাহাড়টিসহ বেশ কয়েকটি জায়গা ঝুঁকিপূর্ণ তা জানিয়ে প্রতিটি বিভাগ-ইনস্টিটিউটে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাহাড়টিতে ওঠার মুখেও নিষেধাজ্ঞার নোটিশ রয়েছে। রাকিব নামের এক ছাত্র তাদের বারবার নিষেধ করেছিল। তবুও তারা ওখানে গেল আর বিপদে পড়ল। আমরা ছিনতাইকারীদের ধরতে চেষ্টা করছি।’

তিনি বলেন, ‘অভিযোগ না জানিয়ে যারা এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সড়ক অবরোধের মাধ্যমে গাড়ি অবরোধ করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Facebook Comments