পিএসএলে ওয়াহাব-শেহজাদের হাতাহাতি!

দুবাইয়ে চলমান পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) শুরু থেকেই চলছে বিতর্ক। এমনিতে, স্লেজিং কিংবা উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় নতুন কোন ঘটনা নয়। কখনো কখনো তা গড়ায় হাতাহাতি কিংবা ধাক্কাধাক্কিতে। পিএসএলে তেমনই এক নজির স্থাপন করলেন পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দলের দুই সদস্য ওয়াহাব রিয়াজ ও আহমেদ শেহজাদ।

গত রোববার রাতে পিএসএলের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল পেশোয়ার জালমি ও কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্স। টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নামে গ্লাডিয়েটর্স। ঘটনাটি ইনিংসের পঞ্চম ওভারে। বল করতে আসেন পেশোয়ারের পেসার ওয়াহাব রিয়াজ। ব্যাট করছিলেন গ্লাডিয়েটর্সের আহমেদ শেহজাদ। প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান শেহজাদ। ছক্কার মার খেয়ে স্বভাবতই ক্ষিপ্ত ছিলেন ওয়াহাব। পরের বলেই বোল্ড করে দেন শেহজাদকে। বুনো উল্লাসে মত্ত তখন ওয়াহাব রিয়াজ। আস্তে আস্তে এগিয়ে যান পিচের মাঝখানে।

তখন শেহজাদও এগিয়ে আসতে আসতে ব্যাট উচিয়ে কিছু একটা যেন বললেন। দুজনই হলেন মুখোমুখি। শেহজাদকে ধাক্কা মারেন ওয়াহাব রিয়াজ। দ্রুতই ঘটনা সামাল দিতে হাজির হন তখন পেশোয়ারের ফিল্ডাররা। রাগে গজগজ করতে মাঠ ছাড়েন শেহজাদ। ক্ষিপ্ত ছিলেন ওয়াহাবও। সেই রাগে চতুর্থ বলেই বোল্ড করেন সাঙ্গাকারাকে।

ম্যাচ শেষে বাজে আচরণের কারণে দু’জনকেই জরিমানা গুনতে হল। ম্যাচ রেফারি রোশান মহানামা ওয়াহাব রিয়াজের ম্যাচ ফি’র ৪০ শতাংশ ও আহমেদ শেহজাদের ম্যাচ ফি’র ৩০ শতাংশ কেটে নিয়েছেন।

দুই পাকিস্তানী ক্রিকেটারের সংঘর্ষের ম্যাচে জিতেছে ওয়াহাব রিয়াজের পেশোয়ার জালমি। এদিন অবশ্য পেশোয়ারের হয়ে মাঠে নামেননি ব্যাট হাতে দুরন্ত ফর্মে থাকা বাংলাদেশের তামিম ইকবাল। অবশ্য তাকে ছাড়াই ৮ উইকেটের দারুণ জয় পেয়েছে পেশোয়ার জালমি।

আগে ব্যাট করতে নেমে ১৮ ওভারে ১২৯ রানে অলআউট হয় কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্স। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৯ বলে ৪০ রান করেন নিউজিল্যান্ডের গ্রান্ট ইলিয়ট। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৮ বল বাকি থাকতেই মাত্র দুই উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছায় পেশোয়ার। ৫২ বলে সর্বোচ্চ ৬০ রানে অপরাজিত থাকেন ডেভিড মালান। হাফিজ ৩৬ ও কামরান করেন ১৭ রান।

Facebook Comments