‘সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডের বেশির ভাগ ঘটনার বিচার হয়নি’

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেছেন, ‘সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বেশির ভাগ ক্ষেত্রে বিচার হয়নি। এটা খুবই দুঃখজনক ও জাতির কাছে লজ্জার।’

২০০০ সালের ২১ এপ্রিল চরমপন্থীদের হাতে নিহত সাংবাদিক নহর আলী শেখের ছেলে আসাদুজ্জামান রিপনের জন্য সাংবাদিকদের উদ্যোগে সিঙ্গাপুরে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা উপলক্ষে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ‘সাংবাদিক পেশায় কীভাবে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয় এবং দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার পর পরিবার কীভাবে অসহায় হয়ে পরে তার দৃষ্টান্ত আজকের এই অনুষ্ঠান।’

অনুষ্ঠানে দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার সমাজের বঞ্চিত মানুষদের কথা সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশের আহ্বান জানান।

প্রবাসী কল্যাণ ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব খন্দকার মো. ইফতেখার হায়দার বলেন, ‘আগামী অভিবাসন দিবসে ভালো কাজ করা রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে পুরস্কৃত করবো। আর যারা খারাপ কাজ করছে তাদের তো ধারাবাহিকভাবে শাস্তির আওতায় আনা হচ্ছে।’

সাংবাদিক নহর আলী চরমপন্থীদের হাতে নিহত হওয়ার পর তার সংসারে নেমে আসে অভাব অনটন। এরপর কীভাবে মা ও ভাইবোনদের নিয়ে সংসারের হাল ধরেছিলেন তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন নহর আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান রিপন।

গণমাধ্যমে আসাদুজ্জামান ও তার পরিবারের কথা জানার পর ঢাকাস্থ বিভিন্ন গণমাধ্যমের সিনিয়র সাংবাদিক ও জনশক্তি প্রেরণকারী মেরিট ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল এর সিইও হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বিনা খরচে সিঙ্গাপুরে হুন্দাই কনস্ট্রাকশন কোম্পানিতে তার চাকরির ব্যবস্থা করেন।

সাংবাদিক নেতা মঞ্জুরুল আহসান বুলবুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা বক্তব্য দেন।

Facebook Comments

Leave a Reply