ভালুকায় রাতের আঁধারে এতিমখানায় হামলা,শিক্ষার্থীদের মারধর ও হুমকি

খোরশেদ আলম(জীবন): ভালুকায় রাতের আধাঁরে এক এতিমখানার ছাত্রাবাসের টিনের বেড়া কেটে ভেতরে ঢুকে হামলা চালিয়েছে মুখোধারি একদল দুর্বৃত্ত। এ সময় ঘুমন্ত শিশুদের মারধরসহ ভোর হওয়ার আগেই মাদরাসা ত্যাগ করার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার ভোররাতে উপজেলার মল্লিকবাড়ি
গ্রামে। মাদরাসার শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শিক্ষকগণ জানান, উপজেলার মল্লিকবাড়ি পূর্বপাড়া মিজবাহুল কোরআন হাফিজিয়া এতিমখানা মাদরাসাটি ২০০৬ইং সালে প্রতিষ্ঠিত হয়ে সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালিত হয়ে আসছিল। এলাকার দানশীল ব্যক্তি মৌলভী মোহাম্মদ আলী মুন্সী কিছু ওয়াকফে সম্পত্তিসহ দুই একর ৪৩ শতাংশ জমি নিয়ে মাদরাসটি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে মাদরাসায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ৪৫ জন শিক্ষার্থী বেশ কয়েকটি বিভাগে অধ্যয়নরত রয়েছে। মাদরাসার একপাশে টিনের বেড়া দিয়ে নির্মিত ঘরে শিক্ষার্থীরা আবাসিক ভাবে অবস্থান করে অধ্যয়ন করছে। শিক্ষার্থীরা জানায়, মঙ্গলবার ভোররাতে দা ও লাঠি হাতে ১০/১২ জনের মুখোধারি একদল দুর্বৃত্ত প্রথমে ঘরের দরজা খোলার জন্য ডাকাডাকি করে। দরজা না খোলায় দা দিয়ে বেড়া কেটে দুর্বৃত্তরা ভেতরে ঢুকে তাদেরকে মারধর করে এবং ভোর হওয়ার পূর্বেই মাদরাসা ত্যাগ করে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়া হয়। মাদরাসার তাইছির জামাত বিভাগের শিক্ষার্থী দেলোয়ার হোসেন (১৪) জানায়, ঘরের বেড়া ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে মুখোধারীরা তাকে লাথি মেরে হুমকী দেয় যে, সকালে যদি তোদেরকে মাদরাসায় দেখি তবে খুন করা হবে। তাদের প্রত্যেকের হাতে দা ও লোহার রড দেখা গেছে। মাদরাসার শিক্ষক হাফেজ আনিছুল হক জানান, শিক্ষার্থীদের কান্নাকাটির শব্দ শুনে পাশের ঘর থেকে বের হয়ে দেখি মুখোশধারী দৃর্বৃত্তরা ঘটনা ঘটিয়ে চলে যাচ্ছে এবং মাদরাসার সাইনবোর্ড দুইটি কুপিয়ে ও কালো রং দিয়ে লেখা গুলো মুছে দেয়। মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী মুন্সী জানান, মাদরাসার জমি নিয়ে উপজেলার মামারিশপুর গ্রামের আবুল হাশেম ও  স্থানীয় যুবলীগে নেতা মোস্তফা ভূইয়া সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আস ছিল এবং এ নিয়ে আদালতে মামলা চলার পর মাদরাসার পক্ষে রায় আসে। ওই বিরোধের জের হিসেবেই প্রতিপক্ষরা এ ঘটনা ঘটাতে পারে। এ ব্যাপারে প্রতিপক্ষ আব্দুল মান্নান ভূইয়ার ছেলে মোস্তফা ভূইয়া মাদরাসায় এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে বলে তার জানা নেই বলে উল্লেখ করে বলেন, এটা তার ও তার পরিবারকে হয়রানি করার জন্য মোহাম্মদ আলী মুন্সীর সাজানো ঘটনা হতে পারে।

Facebook Comments

Leave a Reply