দাড়ি ও গোঁফের কি বাহার!

dariআন্তর্জাতিক ডেস্ক : সারাবিশ্বে চালু আছে অনেক ধরনের ফ্যাশন। কেউ ভালোবাসেন পোশাকের নতুনত্বে কেউবা ব্যস্ত চুল বা নখ সাজানোর উপায় নিয়ে। দাড়ি-গোঁফের ফ্যাশন নিয়েও ব্যস্ত থাকেন অনেকে। সম্প্রতি অস্ট্রিয়ায় ব্যতিক্রমী এক প্রতিযোগিতায় অংশ নিলেন দাড়ি-গোঁফকে প্রায় শিল্প বানিয়ে ফেলা একদল মানুষ।
পৃথিবীর অনেক দেশেই লম্বা দাড়ি পৌরষত্বের প্রতীক। কেউবা আবার সৌন্দর্যের কারণেও রাখেন দাড়ি ও গোঁফ। অনেকে দাড়ি রাখেন শখে। সেই শখকে শিল্পের পর্যায়েও নিয়ে গেছেন কেউ কেউ। এমনই সব শিল্পীর মেলা বসেছিলো অস্ট্রিয়ার লিওগ্যাংয়ে। বিশ্বের নানা দেশ থেকে তিনশোরও বেশি প্রতিযোগি যোগ দেন বিশ্ব দাড়ি ও গোঁফ চ্যাম্পিয়নশিপে।
গোঁফ, আংশিক দাড়ি ও পূর্ণ দাড়ি- প্রতিযোগিতায় ছিলো এই তিনটি গ্রুপ। প্রত্যেকটি গ্রুপ ভাগ করা হয়েছিলো বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে।
দাড়ি ও গোঁফ চ্যাম্পিয়নশিপ সহ-সংগঠক উইলি প্রয়েস বলেন, প্রতিযোগিতাটিকে মোট ১৮টি ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছি আমরা। কোন ক্যাটাগরিতে কারা অংশ নেবে, সে সিদ্ধান্ত নেয় জুরি। এরপর শুরু হয় মূল প্রতিযোগিতা।
প্রতিবারের মত সালভাদর দালির পেন্সিলের চিকন গোঁফ থেকে শুরু করে গারিবালদির লম্বা দাড়ির প্রদর্শন ছিলো এবারের আসরেও। প্রতিদ্বন্দ্বিতা নয়, অংশগ্রহণই মূল লক্ষ্য ছিলো প্রতিযোগিদের।
প্রতিযোগী আরমিন ন্যাপ বলেন, আমার দাড়িটাকে এমন বানাতে প্রায় তিন ঘন্টা সময় ব্যয় করতে হয়েছে। অবশ্য এই কাজটা আমি প্রতিদিন করি না। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার অনুভূতিটাই অন্যরকম। শুধু আমি না, অনেক যুবকও অংশ নিয়েছে। যা সত্যিই দারুণ।
দু’দিনের এই প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীরা বাড়ি ফিরে গেছে হাসিমুখেই। যারা খালি হাতে ফিরেছে, তারা হয়তো এই শৈল্পিক দাড়ি নিয়ে আবারো হাজির হবেন এমন কোনো প্রতিযোগিতায়।

Facebook Comments

Leave a Reply