ভেনিজুয়েলার সুন্দরীদের রহস্য !

19.venezuellaবিনোদনডেস্ক: মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগিতায় গত ছয় বছরের মধ্যে ৩ বছরেই শিরোপা জয় করেছেন ভেনিজুয়েলার সুন্দরীরা। প্রতিযোগিতা শুরু হবার পর এ পর্যন্ত মোট আটবার! সারাবিশ্ব থেকে যেখানে প্রতিবার একশ’র বেশি দেশের সুন্দরীরা অংশগ্রহণ করেন সেখানে ভেনিজুয়েলার সুন্দরীদের এমন দাপট বিস্ময়ের জন্ম না দিয়ে পারে না।

এবারেও অর্থাৎ মিস ইউনিভার্স ২০১৩ প্রতিযোগিতায় বিশ্বসুন্দরীর মুকুট জয় করেছেন মিস ভেনিজুয়েলা গ্যাব্রিয়েলা ইজলার। এবার খাতা-কলম নিয়ে বসে গেছেন গবেষকরা, ভেনিজুয়েলার মেয়েদের মধ্যে কি এমন যাদু আছে যে তারা বিচারকদের বিমোহিত করে বার বার মুকুট জয় করে দেশে ফিরছে।

আসল ঘটনা হলো, সৌন্দর্যচর্চা এবং সুন্দরী হবার বাসনা ভেনিজুয়েলার সমাজের মজ্জাগত। সুন্দরীদের সেখানে বেজায় কদর। বিশেষ করে ক্যারিবিয়ান এবং ল্যাটিন আমেরিকার দেশগুলোতে সুন্দরী হবার আকর্ষণ দুর্নিবার। আজব শোনালেও গুজব নয়— সেখানকার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি গবেষণার বিষয়বস্তু হিসেবে অনেকে ‘সুন্দরী প্রতিযোগিতা’কে বেছে নেন!

মেয়েরা বুঝতে শেখার পরেই তাদের মধ্যে সেরা সুন্দরী হবার একটা সুপ্ত বাসনা তৈরি হয়। সেখানে জাতীয়পর্যায়, স্কুলপর্যায়, কলেজপর্যায়, বিশ্ববিদ্যালয়, জেলাপর্যায় এমনকি পাড়াপর্যায়েও সুন্দরী প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে! আর যত ছোট প্রতিযোগিতা হোক না কেন, সব সুন্দরীর স্বপ্ন থাকে বিশ্ব আসরে জিতে আসার। সেখানে সুন্দরী প্রতিযোগিতা অনেকটা স্কুল জীবনের ‘এইম ইন লাইফ’ রচনার মতো। আছে কোচিং সেন্টারও।

দেশটিতে এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের বিপুল সম্মান দেয়া হয়ে থাকে। পাশাপাশি তাদের ক্যারিয়ারও নিশ্চিত হয়ে যায়। সেরার মুকুট পরা সুন্দরীদের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং রাষ্ট্র মুখপাত্র হিসেবে নিয়োগ করে থাকে। তাদের পেছনে বিলায় কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা। এই প্রতিযোগিতা তাদের কাছে বড় একটি বিনোদনের নামও।

অন্য দেশের সুন্দরীরা অনেকটা শখের বশে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে থাকেন। কিন্তু ভেনিজুয়েলার মেয়েরা প্রতিযোগিতায় জিতে আসার মানসিকতা নিয়েই দেশ ছাড়েন। প্রতিযোগিতার বাছাই পর্বেও অগণিত মেয়েরা অংশগ্রহণ করে থাকে। দৈহিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি সেখানে মেধাকেও সমান প্রাধান্য দেয়া হয়। এই কারণে ভেনিজুয়েলার মেয়েরা যখন বিশ্বসুন্দরীর আসরে যান তখন মেধা যাচাই পর্বে দারুণ দাপট দেখাতে সক্ষম হন।

চলতি বছরের মিস ইউনিভার্স ভেনিজুয়েলার মারিয়া ইজলারকে কয়েকটি স্তরে সেরা সুন্দরী নির্বাচিত হয়ে তবেই জাতীয় পর্যায়ে অংশ নিতে হয়েছে। দেশসেরা সুন্দরী হিসেবে স্বীকৃতি পাবার আগে তার নিজের শহরে মেয়েদের মধ্যেও সেরা সুন্দরীর পরীক্ষা দিতে হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট আটজন ভেনিজুয়েলা থেকে নির্বাচিত হয়েছে। এই রেকর্ড কেউ ভাঙতে পারবে কি না সেটা ভবিষ্যৎ বলে দিবে।

Facebook Comments