সকাল থেকেই তিস্তার তিস্তার পানি বিপদ সীমার উপরে

উজানের ঢলের কারণে তিস্তা নদীতে বন্যা দেখা দিয়েছে। সোমবার সকাল ৬টা থেকে নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার (৫২ দশমিক ৪০) ১২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারাজের সবক’টি (৪৪টি) গেট খুলে দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)।
তিস্তার বন্যায় নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার পূর্বছাতনাই, খগাখড়িবাড়ি, টেপাখড়িবাড়ি, খালিশা চাঁপানী, ঝুনাগাছ চাঁপানী, গয়াবাড়ি ও জলঢাকা উপজেলার, গোলমুণ্ডা, ডাউয়াবাড়ি, শৌলমারী ও কৈমারী ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকার কয়েকটি চরে পানি ঢুকে পড়েছে বলে জানিয়েছেন জনপ্রতিনিধিরা।
পাউবো ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান ও ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র্র সূত্রমতে তিস্তা অববাহিকার ডালিয়া পয়েন্ট ২৪ ঘণ্টায় মাত্র ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হলেও উজানের ভারী বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলের কারণে তিস্তায় বন্যা দেখা দিয়েছে।
সূত্রমতে চলতি বর্ষা মৌসুমে তিস্তায় ১৩ জুন থেকে টানা ১৫ জুন পর্যন্ত পানি বিপদসীমার ২২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার পর তা নেমে যায়। পরে ১৯ জুন তিস্তার পানি বিপদসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও তা নেমে যায়। পরে ২৯ জুন সোমবার সকাল ৬টা থেকে ফের বিপদসীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
Facebook Comments