ধর্ষণ মামলার আসামিদের হুমকিতে এক পরিবার

31.akhiএকুশেরআলো২৪ডেস্ক: রাজধানীতে কলেজ ছাত্রীকে অপহণ ও ধর্ষণ মামলার আসামিরা উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে বাদী ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। সন্ত্রাসীরা বাদীর বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক লুটপাট-ভাঙচুর চালিয়ে বাদীসহ অন্যান্যদের কুপিয়ে আহত করে।
এ ব্যাপারে খিলক্ষেত থানা পুলিশকে অবহিত করলেও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না তারা।
বৃহস্পতিবার সেগুনবাগিচায় বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিসেয়শন (ক্র্যাব) কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন অপহৃত কলেজ ছাত্রীর মা শেফালী আক্তার শিপন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- কলেজ ছাত্রী আঁখির বড় খালা রত্মা আক্তার, শাহানাজ বেগম ও ছোট ভাই জুনায়েদ আলম।
লিখিত বক্তব্যে শেফালী আক্তার শিপন বলেন, কুর্মিটোলা কলেজের মেধাবী ছাত্রী আঁখি ও তার ছোট ভাই জুনায়েদ আলমকে নিয়ে স্বামীর বাড়িতে নিজে মুদি দোকান দিয়ে কোনো মতে দিন-যাপন করছেন। এরই মধ্যে ওই এলাকার তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও একাধিক মামলার পলাতক আসামি ভূমিদস্যূ মোর্শেদ ও তার সহযোগীরা তাকে নানাভাবে নির্যাতন চালাতে থাকে।
গত ২ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রাইভেট পড়ে বাসায় ফেরার পথে তার কলেজ পড়ুয়া মেয়ে আঁখিকে জোড়পূর্বক একটি প্রাইভেট কারে (ঢাকা মেট্রো-গ-২৫-৬৫৩৯) তুলে অপহরণ করে অজ্ঞাত জায়গায় নিয়ে যায়। সেখানে আঁখিকে পাশবিক নির্যাতন করে এবং সন্ত্রাসী মোর্শেদ আলম তাকে জোড়পূর্বক বিয়ে করে। অপহরণের ৯ দিন পর আঁখি সেখান থেকে পালিয়ে এসে নির্যাতনের ঘটনার বর্ণনা দেয়।
পরে ২০১২ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর খিলক্ষেত থানায় একটি মামলা করা হয়। পরে সন্ত্রাসী মোর্শেদ বাহিনী তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটতরাজ করার পর সুজন নামে তার এক দোকান কর্মচারীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা করা হয় (মামলা নম্বর- ১(৪)১৩)।
এ মামলায় আসামিরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনে বের হয়ে আবার তাকে ব্যাপক মারধর করে ও তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট করে। তাকে তার ছেলে-মেয়েসহ ওই বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে দখল নেয়।
তিনি জানান, আঁখিকে আবার অপহরণ করতে সন্ত্রাসী মোর্শেদ বাহিনীর সন্ত্রাসীরা হুমকি দেয়। এ ঘটনার পর জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় একটি জিডি করেন তিনি। এরপরও পুলিশ ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাগ্রহণ করছে না।
বর্তমানে সহায়-সম্বলহীন শেফালী তার দুই সন্তানকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। সন্ত্রাসী মোর্শেদ বাহিনী তার পরিবারের সদস্যদের অত্যাচার-নির্যাতন করছে। সন্ত্রাসী মোর্শেদ আলম বাহিনীর নির্যাতন-অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে কলেজ ছাত্রী আঁখি বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।
বর্তমানে একাধিক মামলার আসামি সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা ও জিডি করা হলেও পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাগ্রহণ করছে না। সন্ত্রাসীদের নির্যাতন-অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে তিনি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপি’র হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

Facebook Comments