মাশরাফিদের ক্রীড়াঙ্গনের অভিনন্দন

ovinondonঢাকা: সোমবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৩ রানের একটি ধৈর্য্যশীল এক ইনিংস খেলেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ । আর এতেই বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে সেঞ্চুরি করার মালিক হলেন তিনি। ম্যাচ সেরা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সেঞ্চুরিতে ভর করেই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ দল। মাশরাফি বাহিনীর এমন কীর্তিতে খুশী অন্য ভুবনের খেলোয়াড়রাও।

জাহিদ হাসান এমিলি, জাতীয় ফুটবলার
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ অসাধারণ ধৈর্য্যরে পরিচয় দিয়েছেন। যা করা উচিত ছিল ওপেনার তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েসদের। অথচ দুটি উইকেট পড়ে যাবার পর দারুণ ধৈর্য্যরে পরিচয় দিয়েছেন রিয়াদ। এর ফলও তিনি পেয়েছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে বিশ্বকাপে প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হিসেবে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের নামটি  লেখা থাকবে অন্যভাবে। যদিও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচে খুব কাছে গিয়েও কাক্সিক্ষত সেঞ্চুরিটি পাননি তামিম ইকবাল। তারপরও তার সতীর্থ মাহমুদউল্লাহ পেরেছেন বলে আমার মনে হয় খুশিই হয়েছেন তামিম। কেবল তামিম নন, দেশের ১৬ কোটি মানুষ বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ইতিহাসে বাংলাদেশকে আরও একবার নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেয়ায় সাধুবাদ জানাচ্ছেন রিয়াদকে। আমিও দেশের একজন ফুটবলার হিসেবে স্যালুট জানাই তাকে।

জাহিদ হোসেন, জাতীয় ফুটবলার
সকালে ক্লাব টেন্টেই ছিলাম। বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখতে টেলিভিশনের সামনে বসলেও মাত্র ৯৯ রানে ৪ ব্যাটসম্যান আউট হওয়ায় খুব কষ্ট লাগছিলো। কিন্ত কিভাবে ধৈর্য্য ধরে উইকেটে টিকে থেকে রান আদায় করে নিতে হয় তা দেখিয়ে দিলেন মাহমুদুল্লাহ। অসাধারণ একটি ইনিংস খেলেছেন। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুটিও আসলো তার ব্যাট থেকে। আর এই জন্য মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ অবশ্যই কৃতিত্বের দাবীদার। বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে আরও একবার পরিচয় করিয়ে দেয়ায় ধন্যবাদ জানাই তাকে।

ইতি ইসলাম, জাতীয় উশু খেলোয়াড়
অসাধারণ। ধৈর্য্যসুলভ ব্যাটিং। সব কিছু মিলিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সেঞ্চুরিটি এক কথায় দারুন। যা পারেননি ওপেনিং ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। তা করে দেখিয়েছেন রিয়াদ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম এই সেঞ্চুরিয়ানকে সাধুবাদ জানাই। আশাকরি, ধীরে ধীরে অন্য দেশের মতোই বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা আরও সমৃদ্ধ করবেন নিজেদের এবং বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশকে।

ইমদাদুল হক মিলন, জাতীয় আরচার
এটা সত্যি অন্যরকম এক অনুভূতি। ওয়ানডেতে বাংলাদেশ অনেক কীর্তিই গড়েছে। কিন্তু বাকি ছিল বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সেঞ্চুরিটি। সেটাও সোমবার করে দেখালেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। বিশ্বকাপ ক্রিকেটে প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে সেঞ্চুরি করায় আমার পক্ষ থেকে রিয়াদকে অভিনন্দন জানাই। এগিয়ে যাক মাশরাীপ বাহিনী। সময়োচিত এই সেঞ্চুরিটি  শেষ পর্যন্ত বৃথা যায়নি। মাহমুদউল্লাহর  সেঞ্চুরির উপর ভর করেই বিশ্বকাপে দ্বিতয়িবারের মতো শেষ আটে উঠেছে  বাংলাদেশ।

Facebook Comments