আতঙ্কে ম্লান ঈদ আনন্দ

রাজধানীর উত্তর ভাষাণটেকের বাগানবাড়ি এলাকা। বাসার সামনে খোলা জায়গা কিংবা গ্যারেজের সামনে অনেকেই কোরবানি দিচ্ছেন। এসময় আশ-পাশের জানালায়-বারান্দায় শিশু-কিশোরদের উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। তাদের ম্লান দৃষ্টিই বলে দেয় করোনা আতঙ্কে এবারের ঈদের আনন্দে ভাটা পড়েছে।

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাস সংক্রণের পর চারটি ঈদ উৎসব উদযাপিত হয়েছে। করোনারকালের এ ঈদকে অনেকেই ঘরবন্দি মানুষের ঈদ বলে আখ্যায়িত করেছেন। রাজধানীসহ সারা দেশের মানুষের মধ্যেই করোনার আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বাগানবাড়ি এলাকার বাসিন্দা নাজিমুদ্দিন জানান, কোরবানি দিচ্ছি ঠিকই কিন্তু অজানা একটি আতঙ্ক মনের মধ্যে বসে আছে। আমার দুই মেয়ে। ওরা বাসার জানালায় বন্দি। আতঙ্কে বাইরে আসতেও পারছে না।

কলেজছাত্র নাফিম বলেন, করোনা আতঙ্কে তার বৃদ্ধ বাবাকে বাইরে আসতে দেয়নি। কোরবানিতে তারাই তদারকি করছেন। তিনি বলেন, এখন আর কি করা যাবে? কোরবানিও তো দিতে হবে! এলাকার অনেকেই তো স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৫৭৯ জন। একই সময়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ২০০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১১১ জন এবং মহিলা ৮৯ জন। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ লাখ ২৮ হাজার ৮৮৯ জন এবং করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৩২৫ জন।

বিদ্যমান পরিস্থিতিতে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিজ নিজ কর্মস্থলেই থাকতে নির্দেশ দিয়েছে সরকার। তারপরও রাজধানী ঢাকা বা দেশের অন্য এলাকায় যারা জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে থাকেন তারা গ্রামের বাড়ি গেছেন। অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। মাস্ক পরছেন না, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না। ফলে করোনা সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে দেশবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ, তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের প্রমুখ। এসব বাণীতে তারা দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে দেশ, জাতিসহ গোটা মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ ও বিশ্ব শান্তি কামনা করেছেন।

ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রীয়ভাবে সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের ভবনগুলোয় আলোকসজ্জা করা হয়েছে। জাতীয় সংবাদপত্রগুলো বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতারসহ বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলো ঈদ উপলক্ষ্যে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা সম্প্রচার করবে। আজ ঈদের দিন সরকারিভাবে হাসপাতাল, কারাগার, এতিমখানা ও শিশুসদনে উন্নত বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হবে।

Facebook Comments