তালায় ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের পাশে দিয়ে ড্রেন না রাখায় জলাবদ্ধতার সম্ভাবনা

এসএম বাচ্চু,তালা(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি : অভিশপ্ত শত বছরের তালা সদরের জলাবদ্ধতা নিরাশন করে আশার আলো দেখিয়ে ছিলেন সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক এস এম নজরুল ইসলাম। অন্যদিকে তালাবাসীর প্রানের দাবী ফায়ার সার্ভিস নির্মাণের বহু প্রতিক্ষার ফসল হিসাবে গত বছর থেকে শুরু হয়েছে তালায় ফায়ার সার্ভিস নির্মাণের কাজ। যাহা নিতান্তয় তালা উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ একটি পরিসেবা। তবে ফার্য়ার সার্ভিসের ষ্টেশনের পাশ দিয়ে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রাখা হলো জন ভোগান্তীর বিষয়।
বৃষ্টির শুরুতেই তালা উপজেলা সদর প্লাবিত থাকতো তালার সাবেক চেয়ারম্যানের নিরলস প্রচেষ্টায় শত বছরের জলাবদ্ধতার নিরাশন হয়েছিলো। তালা সদরের বর্ণ্যার পানি তালা আলিয়া মাদ্রসার পাশ দিয়ে বারুইহাটি, মহল্লাপাড়া হয়ে শেরেরডাঙ্গী মধ্যদিয়ে তালা পেট্রলপাম্পের পিছন দিয়ে নির্মাণাধীন ফার্য়ার সার্ভিসের মাঝ বরাবর ক্যানেল দিয়ে খুব সহজে সরকারী খালে পানি প্রবেশ করতো।
তালা বাসির প্রানের দাবী তালায় ফায়ার সার্ভিস এর অফিস কিন্তু সংশ্লিষ্ট বিভাগের বিবেচনা করা উচিত ছিলো পানি সরবরাহের জন্য একটি ড্রেন রাখা। কোনপ্রকার কর্মপরিকল্পনা ছাড়ায় তড়িঘরি করে তৈরী হচ্ছে বহুতল এই ভবণ। যেহেতু ভবনটি এখনো শেষ হয়নি সেহেতু পরিকল্পনা করে বিশেষ নজরদারীতে ফায়ার সার্ভিস নির্মাণাধীন অফিসের পাশদিয়ে একটি পানির ড্রেণ করা যেতে পারে। আর সেটাই হতে পারে এলাকার জলাবদ্ধতা নিরাশনের সমাধান। বিষটি জরুরী ভাবে পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য ইউএনও তালা, উপজেলা চেয়ারম্যান তালা, ও সংশ্লিষ্ট বিভাগের দৃষ্টিআকার্ষণ করছেন তালার আপামর জনসাধারণ।
তালা উপজেলার একাধীক লোক বলেন, ফায়ার সার্ভিস আমাদের অতি প্রয়োজন অন্যদিকে পানি সরবরাহের জন্য ব্যাবস্থা রাখা খুব জরুরী। কতৃপক্ষের কাছে বিষয়টি ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।
তালা উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার বলেন এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নির্মাণধীন ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের পাশদিয়ে একটি পানির ড্রেন না রাখলে এলাকা সমূহ প্লাবনের সম্ভবনা রয়েছে। নির্মাণধীন ফায়ার সার্ভিসের পাশদিয়ে পানি সরবরাহে ড্রেন রাখতে হবে আমি ঠিকাদারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করছি।
এবিষয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারিফ-উল হাসান বলেন নির্মাণধীন ফায়ার সার্ভিসের পাশদিয়ে পানির ড্রেন করার বিষয়ে প্রয়োজন হলে সংশ্লিষ্ট বিভাগের সাথে কথা বলে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments