আত্রাইয়ে ভুট্টা মাড়াইয়ে ব্যস্ত কৃষক

রুহুল আমিন,আত্রাই (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর আত্রাইয়ে বোরো ধান কাটা ও মাড়াই শেষ হতে না হতে ভুট্টা কর্তন-মাড়াইয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক। অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারও রেকর্ড পরিমানজমিতে ভুট্টার চাষ করা হয়েছে। এবারে ভুট্টার ফলনও ভাল হওয়ায় ভুট্টাচাষিদের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। কম খরচে অধিক মুনাফা অর্জনের স্বপ্ন নিয়ে এলাকার হাজার হাজার কৃষক ভুট্টাচাষ করে থাকেন। এক সময় ভুট্টার চাহিদা তেমন না থকায় এলাকায় ভুট্টাচাষ চোখেই পরতো না। কিন্তু এখন উপজেলার ৮ ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠে ও নদীর তীর এলাকাগুলোতে কৃষকরা ভুট্টাচাষে ব্যাপক আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।
স্থানীয় কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবারে উপজেলার ৮ ইউনিয়নে প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টাচাষ করা হয়েছে। এর মধ্যে আহসানগঞ্জ, পাঁচুপুর ও ভোঁপাড়া ইউনিয়নে সর্বাধিক পরিমান জমিতে ভুট্টাচাষ করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই আগাম জাতের ভুট্টা কর্তন ও মাড়াই শুরু হয়েছে। এবারে মৌসুমের শুরু থেকেই আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ভুট্টার বাম্পার ফলন হয়েছে। প্রতি বিঘা জমিতে ৩৫ থেকে ৪০ মণ হারে ভুট্টার ফলন হচ্ছে। এ বাম্পার ফলনে ভুট্টাচাষিদের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। ফলনের সাথে সাথে বাজারে দামও ভাল রয়েছে। ৭৫০ থেকে ৮৫০ টাকা মণ ভুট্টা কেনা বেচা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। সাহেবগঞ্জ সরদার পাড়া গ্রামের ইয়াচিন আলী বলেন, গত বছর ভুট্টা চাষ করে বাম্পার ফলন হয়েছে এবং এর দামও ভালো পেয়েছি। ভুট্টা চাষে খরচ কম, লাভ বেশি। তাই আমি এ বছর অনেক জমিতে ভুট্টার আবাদ করেছি। এবারও ভুট্টার বাম্পার ফলন হয়েছে। বিপ্রবোয়ালিয়া গ্রামের রেজাউল করিম টিপু বলেন, ভুট্টা চাষের জন্য খরচ কম এবং লাভজনক হওয়ায় আমাদের এলাকার কৃষকরা ব্যাপক হারে ভুট্টা চাষে ঝুঁকে পড়েছে। আমাদের গ্রামসহ আসপাশের মাঠগুলোতেও বাপকহারে ভুট্টার চাষ করা হয়েছে। শুরু থেকেই আবহাওয়া ভাল থাকায় গত বছরের ন্যায় এবারও ভুট্টার বাম্পার ফলন ভাল হচ্ছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেএম কাউছার হোসেন বলেন, এলাকার কৃষকরা যাতে ভুট্টাচাষে ক্ষতিগ্রস্ত না হন এ জন্য মৌসুমের শুরু থেকেই আমাদের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাগণ মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের সার্বক্ষণিক কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করেছেন। এ ছাড়াও চলতি বছরে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ভুট্টার ভালো ফলন ভাল হয়েছে। কৃষকরা যাতে তাদের হাড় ভাঙা পরিশ্রমে অর্জিত ফসল সাচ্ছন্দে ঘরে তুলতে পরলে এবং ন্যায্য মূল্য পান এটা আমাদের প্রত্যাশা।

Facebook Comments