সাময়িকভাবে ফরাসি নাগরিকদের পাকিস্তান ত্যাগের পরামর্শ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ফরাসি নাগরিকদের সাময়িকভাবে পাকিস্তান ত্যাগের পরামর্শ দিয়েছে ফ্রান্স। এছাড়া দেশটিতে ফরাসি স্বার্থের জন্য গুরুতর হুমকির বিষয়েও সতর্ক করা হয়েছে। খবর রয়টার্সের।

এ সপ্তাহে পাকিস্তানের হাজার হাজার ইসলামপন্থীর সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। মহানবীকে (সা.) নিয়ে কার্টুন আঁকায় যে বিক্ষোভ হয়েছে, সেখান থেকে বিক্ষোভকারীদের আটক করায় এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচি চালান ইসলামপন্থীরা।

দেশটির কট্টরপন্থী ধর্মীয় গোষ্ঠী তেহরিক-ই-লাব্বাইক পাকিস্তানের (টিএলপি) হুমকির পর ফরাসি নাগরিক ও কোম্পানিগুলোকে সতর্ক করে দিয়ে বার্তা পাঠানো হয়েছে।

ফরাসি স্বার্থের প্রতি হুমকির কারণে পাকিস্তানে অবস্থানরত ফরাসি নাগরিকদের পাকিস্তান ছাড়তে ও ফরাসি কোম্পানিগুলো বন্ধ করতে বার্তায় পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

গত বছর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এক শিক্ষকের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর পর প্যারিস ও ইসলামাবাদের সম্পর্কে টানাপোড়েন তৈরি হয়। ওই শিক্ষক মত প্রকাশের স্বাধীনতাবিষয়ক ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মহানবীর (সা.) কার্টুন দেখিয়েছিলেন। এ কারণে ১৮ বছর বয়সী এক তরুণ ওই শিক্ষককে গলা কেটে হত্যা করেন।

মহানবীর (সা.) এই কার্টুনগুলো মুসলিম বিশ্বে, বিশেষ করে পাকিস্তানে ব্যাপক অসন্তোষ তৈরি করে। এ ঘটনায় এক পাকিস্তানি মন্ত্রী মন্তব্য করেছিলেন, ফ্রান্স মুসলিমদের প্রতি এমন আচরণ করছে যেমনটা নাৎসিরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ইহুদিদের প্রতি করেছিল। পরে এই বক্তব্য প্রত্যাহার করে নেন তিনি।

গত বছর টিএলপির বিক্ষোভের জেরে পাকিস্তান সরকার ফরাসি পণ্য বয়কটকে সমর্থন জানিয়ে এক চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। এছাড়া ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের উদ্যোগও সংসদে নেয়া হয়। এ সপ্তাহে ফরাসি প্রতিনিধিকেও বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছে টিএলপি।

পাকিস্তান জানিয়েছে, তারা টিএলপিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করবে। টিএলপির নেতাকে গ্রেফতার করায় বিক্ষোভ তীব্রতর হয়েছে।

এক ফরাসি সূত্রের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘এটি একটি গুরুতর অবস্থা এবং আমরা জানি যে পাকিস্তানে পরিস্থিতি দ্রুতই খারাপের দিকে যেতে পারে।’

প্যারিসে অবস্থিত পাকিস্তানি দূতাবাসের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনও কোনো মন্তব্য আসেনি।

Facebook Comments