ইতিহাসে প্রথম নারী প্রধান সম্পাদক রয়টার্সে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সে ১৭০ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনও নারী প্রধান সম্পাদকের পদে বসতে চলেছেন। তার নাম আলেসান্দ্রা গ্যালোনি। রোমের অধিবাসী ৪৭ বছর বয়সী এ নারী স্টিফেন জে. অ্যাডলারের স্থলাভিষিক্ত হতে চলেছেন।

গত এক দশক ধরে রয়টার্সকে নেতৃত্ব দেয়ার পর চলতি মাসে অবসরে যাচ্ছেন অ্যাডলার। তার অধীনে সংস্থাটি পুলিৎজার পুরস্কারসহ সাংবাদিকতায় শত শত সম্মাননা অর্জন করেছে। সফলতার সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার প্রত্যয় নিয়ে রয়টার্সের প্রধান সম্পাদকের পদে বসতে চান গ্যালোনি।

চারটি ভাষায় দক্ষ এ নারী এর আগে দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে কাজ করেছেন। ব্যবসায়িক এবং রাজনৈতিক সংবাদের ক্ষেত্রে তার প্রচুর অভিজ্ঞতা রয়েছে।

গ্যালোনি সহকর্মীদের বলেছেন, প্রধান সম্পাদক হিসেবে তার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কাজ হবে সংস্থাটির বৃহত্তম গ্রাহক রেফিনিটিভের সঙ্গে সুসম্পর্ক ধরে রাখা। পাশাপাশি, রয়টার্সের ডিজিটাল এবং ইভেন্টস ব্যবসা বাড়ানোতেও অগ্রাধিকার দেবেন তিনি।

আলেসান্দ্রা গ্যালোনি হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটি ও লন্ডন স্কুল অব ইকনোমিকস থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েছেন। পেশাগত জীবনের শুরুর দিকে কাজ করেছেন রয়টার্সের ইতালীয় ভাষার সংবাদ পরিষেবায়। পরে যোগ দেন দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে। সেখানে ১৩ বছর কাজ করার পর ২০১৩ সালে আবারও রয়টার্সে ফেরেন তিনি।

রয়টার্সে বিশ্বের ২০০টি স্থানের সংবাদিকদের বিষয়গুলো দেখভাল করেছেন গ্যালোনি। এতদিন সংস্থাটির বৈশ্বিক ব্যবস্থাপনা সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের পর এবার প্রধান সম্পাদক হতে চলেছেন পরিশ্রমী এ নারী। আগামী ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে তার নতুন চ্যালেঞ্জ।

প্রধান সম্পাদক হিসেবে নিয়োগের বিষয়ে গ্যালোনি বলেন, ১৭০ বছর ধরে স্বাধীন, বিশ্বাসযোগ্য ও বৈশ্বিক সাংবাদিকতার মানদণ্ড নির্ধারণ করেছে রয়টার্স। প্রতিভাবান, নিবেদিত ও অনুপ্রেরণাদায়ী সাংবাদিকে ভরা বিশ্বমানের একটি নিউজরুমে নেতৃত্ব দেয়া আমার জন্য অত্যন্ত সম্মানের বিষয়।

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে রয়টার্সের প্রায় ২ হাজার ৪৫০ জন সাংবাদিক রয়েছেন। ২০০৮ সাল থেকে এটি থমসন রয়টার্স করপোরেশনের অংশ।

Facebook Comments