কোভ্যাক্স থেকে ১ কোটি ৯ লাখ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক : আগামী জুন মাসের আগে কোভ্যাক্স থেকে ১ কোটি ৯ লাখ ৮ হাজার টিকা পাবে বাংলাদেশ। প্রথম দফা করোনার টিকা বিতরণের তালিকা প্রকাশ করেছে তারা।

কোভ্যাক্সের আওতায় বিশ্বজুড়ে বিনামূল্যে টিকা সরবরাহের একটি পরিকল্পনা গতকাল মঙ্গলবার প্রকাশ করা হয়েছে। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, মে মাসের শেষ নাগাদ পর্যন্ত ১৪২ দেশকে ২৩ কোটি ৭০ লাখ ডোজ টিকা সরবরাহ করা হবে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও ভারতের সেরাম ইনস্টিটউটের উৎপাদিত টিকা দু’ভাগে বিতরণের সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রথম ধাপে ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ আর দ্বিতীয় ধাপ এপ্রিল থেকে মে।

কোভ্যাক্সের লক্ষ্য, স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশে টিকা সরবরাহ নিশ্চিত করা। ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রথম দেশ হিসেবে টিকা পেয়েছে পশ্চিম আফ্রিকার দেশ ঘানা।

এই বছরের শেষ নাগাদ, বিশ্বজুড়ে দুইশ কোটি ডোজ টিকা বিতরণের লক্ষ্য ঠিক করেছে কোভ্যাক্স। কোভ্যাক্স কর্মসূচির আওতায় জুনের আগে বাংলাদেশ পাবে ১ কোটি ৯ লাখ ৮ হাজার টিকা। এছাড়া বেশি টিকা পেতে যাওয়া অপর দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তান ১ কোটি ৪৬ লাখ ৪০ হাজার, নাইজেরিয়া ১ কোটি ৩৬ লাখ ৫৬ হাজার, ইন্দোনেশিয়া ১ কোটি ১৭ লাখ ৪ হাজার ৮০০ ও ব্রাজিল ৯১ লাখ ২২ হাজার ৪০০ টিকা পাবে।

তালিকায় এর পরে পাঁচটি দেশ রয়েছে। এর মধ্যে ইথিওপিয়া ৭৬ লাখ ২০ হাজার, ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব দ্য কঙ্গো ৫৯ লাখ ২৮ হাজার, মেক্সিকো ৫৫ লাখ ৩২ হাজার, মিসর ৪৩ লাখ ৮৯ হাজার ৬০০ ও ভিয়েতনাম ৪১ লাখ ৭৬ হাজার টিকা পাবে। ইরান, মিয়ানমার, কেনিয়া ও উগান্ডাও টিকা পাওয়ার তালিকায় রয়েছে। প্রতিটি দেশ ৩০ লাখের বেশি টিকা পাবে। মে মাসের শেষ দিকে ভারতও কোভ্যাক্সের টিকার বড় সরবরাহ পেতে পারে।

এদিকে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে আরো ৩ কোটি ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা টিকা কিনছে বাংলাদেশ। বুধবার দুপুরে রাজধানীর এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য সচিব আবদুল মান্নান।

সচিব জানান, এক ডোজের টিকা হওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের জনসন এন্ড জনসনের টিকায় আগ্রহ আছে সরকারের। টিকা পেতে সেখানেও যোগাযোগ চলছে।

আবদুল মান্নান বলেন, কোভ্যাক্স থেকেও অল্প সময়ের মধ্যেই টিকা পাবে বাংলাদেশ। এখান থেকে ৬ কোটি ৮০ লাখ টিকা পাওয়ার কথা বাংলাদেশের।

Facebook Comments