মার্চ ৯, ২০২১

Latest News Before Everyone in Bangladesh

বঙ্গোপসাগরে সফল মিসাইল উৎক্ষেপণে শেষ হলো নৌবাহিনীর মহড়া

১ min read

বিশেষ সংবাদদাতা : বঙ্গোপসাগরে সফল মিসাইল উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর বাৎসরিক সমুদ্র মহড়া ‘এক্সারসাইজ সেফগার্ড-২০২০’ শেষ হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) মহড়ার শেষদিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। এ সময় নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবালও উপস্থিত ছিলেন।

১৮ দিনব্যাপী এ মহড়ায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ‘ফ্রিগেট’, ‘করভেট’, ‘ওপিভি’, ‘মাইনসুইপার’, ‘পেট্রোলক্র্যাফ্ট’, ‘মিসাইল বোট’সহ উল্লেখযোগ্য সংখ্যক জাহাজ এবং মেরিটাইম পেট্রোল এয়ার ক্র্যাফট, হেলিকপ্টার এবং বিশেষায়িত ফোর্স ‘সোয়াডস্’ প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ করে।

এছাড়াও, বাংলাদেশ কোস্টগার্ড, সেনা ও বিমানবাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট মেরিটাইম সংস্থাগুলোও প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে অংশ নেয় এতে। মোট ৪টি ধাপে অনুষ্ঠিত মহড়ার উল্লেখযোগ্য দিকগুলোর মধ্যে ছিল- নৌ বহরের বিভিন্ন কলাকৌশল অনুশীলন, সমুদ্র এলাকায় পর্যবেক্ষণ, অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযান, লজিস্টিক অপারেশন, ল্যান্ডিং অপারেশন, উপকূলীয় এলাকায় অবস্থিত নৌ স্থাপনাগুলোর প্রতিরক্ষা মহড়া প্রভৃতি।

নৌবাহিনীর এ বার্ষিক মহড়ার মূল প্রতিপাদ্য ছিল সমুদ্র এলাকায় দেশের সার্বভৌমত্ব সংরক্ষণ, সমুদ্র সম্পদের হেফাজত, সমুদ্রপথের নিরাপত্তা বিধানসহ চোরাচালান রোধ, জলদস্যুতা দমন, উপকূলীয় এলাকায় জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ এবং সমুদ্র এলাকায় পাহারা নিশ্চিত করা।

শেষদিনে মহড়ার উল্লেখযোগ্য বিষয়ের মধ্যে ছিল- বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জাহাজ থেকে মিসাইল উৎক্ষেপণ, অ্যান্টিএয়ার র‌্যাপিড ওপেন ফায়ার, আরডিসি ফায়ার, ভিবিএসএস/নৌ কমান্ডো মহড়া ও নৌ যুদ্ধের বিভিন্ন কলাকৌশল।

মহড়ার সফল সমাপ্তির পর প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম নৌ অঞ্চলের সব কর্মকর্তা ও নাবিকদের অভিনন্দন জানান এবং নৌ সদস্যদের পেশাগত মান, দক্ষতা ও কর্মনিষ্ঠার প্রশংসা করেন। তিনি দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য একটি শক্তিশালী নৌবাহিনী গঠনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের কথা উল্লেখ করেন এবং সে লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের অব্যাহত প্রচেষ্টার কথা ব্যক্ত করেন।

দেশের সমুদ্রসীমা রক্ষার পাশাপাশি জাতীয় অর্থনীতিতে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সক্রিয় ভূমিকারও প্রশংসা করেন তিনি।

এদিন অন্যান্যের মধ্যে উচ্চপদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments