কানাডায় করোনায় মৃত্যু ১৫ হাজার ছাড়াল

প্রবাস ডেস্ক : কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৫ হাজার ২০৭ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৫ হাজার ১২১ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৯৭৩ জন।

কানাডার প্রধান চারটি প্রদেশ- অন্টারিও, বৃটিশ কলম্বিয়া, আলবার্টা এবং কুইবেকে নাটকীয়ভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এ কারণে হাসপাতাল ও হেলথকেয়ার সেন্টারগুলোতে ব্যাপকহারে রোগীর চাপ বাড়ছে।

লোক সংখ্যার দিক থেকে কানাডার বৃহত্তম প্রদেশ অন্টারিওতে প্রতিদিনই প্রচুর সংখ্যক করোনা আক্রান্ত রোগীর খবর পাওয়া যাচ্ছে।

করোনা সংক্রমন ঠেকাতে ২৫ ডিসেম্বর থেকে কুইবেকে আবার লকডাউন শুরু হয়েছে। জরুরি ফার্মেসি এবং গ্রোসারী ছাড়া অন্য সবকিছু বন্ধ থাকবে। বাসা থেকে বের হলেই ক্রেতা-বিক্রেতা সবাইকে মাস্ক পরে এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে। পুলিশ এবং স্বাস্থ্য পরিদর্শকরা কড়াকড়িভাবে নাগরিকদের উপর নজরদারি করছেন।

কুইবেকের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্রিশ্চিয়ান ডুবে নাগরিকদের সতর্ক করে বলেছেন, অনেক হাসপাতালেই রোগী ধারণের সক্ষমতা ছাড়িয়ে গেছে। এ কারণে হোটেল ও রিসেপশন হলগুলোতে কোভিড রোগীদের জন্য বিশেষ বেড স্থাপন করা হচ্ছে।

কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়াতে করোনা মহামারির দ্বিতীয় পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। সামাজিক দূরত্ব, স্বাস্থ্যবিধি, সরকার কর্তৃক বিভিন্ন বিধিনিষেধ দেয়া সত্বেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না।

এছাড়া আলবার্টায়ও করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় হাসপাতাল ও নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রগুলোতে চাপ বেড়েছে।

অন্যদিকে করোনাভাইরাসের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যেই করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হলেও শারীরিক দূরত্ব ও মাস্ক ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই।

Facebook Comments