আগে জনস্বাস্থ্য পরে অর্থনীতি : জাস্টিন ট্রুডো

প্রবাস ডেস্ক : কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ডসংখ্যক বেড়ে যাওয়ায় প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো দেশটির বিভিন্ন প্রদেশের প্রিমিয়ার এবং মেয়রদের অনুরোধ করে বলেছেন, ‘কানাডিয়ানদের ঝুঁকিতে ফেলে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখবেন না।’

তিনি বলেন, প্রয়োজন হলে আরও সাহায্য দেবে ফেডারেল সরকার। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমবর্ধমান হারে বেড়ে যাওয়ায় জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে এবং চাকরির সুরক্ষার জন্য সরকারের ওপর চাপ বেড়েছে। অর্থনীতির ধীরগতির কথা না ভেবে জনস্বাস্থ্যের প্রতি গুরুত্ব দিন।

মঙ্গলবার অটোয়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রুডো এসব বলেন।

তিনি বলেন, আমি প্রিমিয়ার এবং আমাদের মেয়রদের অনুরোধ করছি সঠিক কাজটি করার জন্য। জনস্বাস্থ্য রক্ষায় এখনই কাজ করুন। মনে রাখতে হবে আগে জনস্বাস্থ্য পরে অর্থনীতি।

তিনি আরও বলেন, যদি মনে করেন সমর্থনটিতে কিছু ঘাটতি রয়েছে, আমরা আপনার নাগরিকদের জন্য প্রস্তাব দিচ্ছি, আমাদের বলুন। এটি যাই হোক না কেন, তবে এটি দীর্ঘ সময় নেয়।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন এবং করোনা মহামারির দীর্ঘ ৯ মাসে তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। এ সময় তিনি কানাডিয়ানদের নিজ নিজ এলাকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য, কানাডার প্রধান চারটি প্রদেশে ক্রমবর্ধমান হারে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে হাসপাতাল, নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে ব্যাপকহারে চাপ পড়ছে। ইতোমধ্যে কানাডার আলবার্টায় নাটকীয়ভাবে করোনাভাইরাস বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রদেশজুড়ে একদল চিকিৎসক আলবার্টা সরকারকে অবিলম্বে দুই সপ্তাহের জন্য জরুরিভিত্তিতে লকডাউনের আহ্বান জানিয়েছেন।

সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৭১ হাজার ৬৬৯ জন, মৃত্যুবরণ করেছেন ১০ হাজার ৬২২ এবং সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ২০ হাজার ৩০৬ জন।

Facebook Comments