গুড়ের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে খেলে কী হয়?

লাইফস্টাইল ডেস্ক : স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া কঠিন কোনো কাজ নয়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলার জন্য ছোট ছোট প্রচেষ্টাই যথেষ্ট। এটি করার জন্য আপনাকে বিদেশি খাবার কিনতে হবে না। সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য আপনার রান্নাঘরে থাকা উপাদানগুলোই ব্যবহার করুন, আপনি যদি সেগুলো সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারেন, তবে আর চিন্তা নেই! বিস্তারিত প্রকাশ করেছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

জাদুকরী মিশ্রণ
রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং হরমোনজনিত সমস্যা পরিচালনা করতে সাহায্য করতে পারে একটি মিশ্রণ। দুপুরের খাবার খাওয়ার পরে ঘি ও গুড়ের মিশ্রণ খেলে তা শরীর সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।এই দুটি খাবারের সংমিশ্রণ কেবল মিষ্টি খাওয়ার আকাঙ্ক্ষা পূরণের পাশাপাশি ত্বক ভালো রাখতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে আশ্চর্য কাজ করে।

ঘি এবং গুড়
ঘি ও গুড় মিলিয়ে খাওয়া একটি সময় পরীক্ষিত প্রতিকার। উভয়ই সুপারফুড হিসাবে বিবেচিত এবং বিজ্ঞানও এতে সম্মতি দেয় । এগুলোতে এমন পুষ্টি রয়েছে যা আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

গুড় এবং ঘিতে পুষ্টিকর উপাদান
চিনির স্বাস্থ্যকর বিকল্প গুড়। এতে পুষ্টি উপাদান রয়েছে এবং চিনির মতো রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়ায় না। গুড়ের মধ্যে রয়েছে আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, ভিটামিন বি এবং ভিটামিন সি। অন্যদিকে ঘি বিভিন্ন ধরণের ভিটামিন এবং ফ্যাটি অ্যাসিডের সমৃদ্ধ উৎস। এটি ভিটামিন এ, ই এবং ডি দিয়ে ভরা। এছাড়াও এতে ভিটামিন কে রয়েছে যা ক্যালসিয়ামকে হাড়ের মধ্যে শোষণ করতে সহায়তা করে।

গুড় এবং ঘি এর স্বাস্থ্য উপকারিতা
গুড় এবং ঘি উভয়ই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং হরমোন ভারসাম্যহীনতা বজায় রাখতে সহায়তা করে। দুটি একসাথে খেলে তা শরীরকে ডিটক্সাইফাই করতে সহায়তা করতে পারে। এছাড়াও এটি আপনার ত্বক, চুল এবং নখকে স্বাস্থ্যকর রাখতে সহায়তা করতে পারে। এগুলো মানসিক চাপ কমাতে এবং রক্তস্বল্পতার সমস্যা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করে।

কীভাবে খাবেন
সর্বাধিক উপকারিতা পেতে দুপুরের খাবার খাওয়ার পরে এক চামচ ঘিতে কিছু গুড় মিশিয়ে খেতে হবে। এটি আপনি রাতের খাবারের পরেও খেতে পারেন।

Facebook Comments