বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মুক্তির স্থপতি শেখ হাসিনা : কে এম খালিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেছেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্র বিশ্বের বুকে আত্মপ্রকাশ করে। তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের অর্থনৈতিক মুক্তি সাধিত হচ্ছে।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজিত ‘লেখক শেখ হাসিনা’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ, বলিষ্ঠ ও দূরদর্শী নেতৃত্বে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশ। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা, বেকারত্ব হ্রাস, কৃষিতে সফলতা, নারীর ক্ষমতায়ন, স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণসহ অবকাঠামো উন্নয়নে বিপ্লব ঘটেছে। রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ এবং ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ ঘোষণা এবং তা বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দূরদর্শী ও গতিশীল নেতৃত্বের পরিচয় দিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধু হত্যা ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকার্য সম্পন্ন করে বাঙালি জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। সেজন্য স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি এখনো তাকে হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ইতিমধ্যে ১৯ বার তাকে হত্যার অপচেষ্টা করা হয়েছে। সেজন্য আমাদের আরও সতর্ক ও সচেতন হতে হবে। আমরা সংযত না হলে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি আবারও মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে পারে।

বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে সেমিনারে ‘শেখ হাসিনা রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থপাঠ কেন অপরিহার্য’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ। স্বাগত বক্তৃতা করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী। এর আগে প্রতিমন্ত্রী বাংলা একাডেমি আয়োজিত তিন দিনব্যাপী (২৮-৩০ সেপ্টেম্বর) শেখ হাসিনা রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন।

Facebook Comments