সিঙ্গাপুরে গেলে পরতে হবে ইলেক্ট্রনিক ট্যাগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : করোনাভাইরাসের কোয়ারেন্টাইন পালন নিশ্চিত করার জন্য আগত ভ্রমণকারীদের ইলেক্ট্রনিক পর্যবেক্ষণ ট্যাগ পরতে হবে বলে জানিয়েছে সিঙ্গাপুর। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বন্ধ হওয়া সীমান্ত ধীরে ধীরে পুনরায় খুলে দেয়ার অংশ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটি। সোমবার সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তাসংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

আগামী ১১ আগস্ট থেকে দেশটিতে আগত ভ্রমণকারীদের এই ডিভাইস দেবে সিঙ্গাপুর। দেশটির নাগরিক এবং অন্যান্য দেশের বাসিন্দারাও এই ডিভাইস পাবেন। এছাড়া নির্দিষ্ট কিছু দেশের নাগরিক সিঙ্গাপুরে প্রবেশের পর রাষ্ট্রীয় স্থাপনার পরিবর্তে বাড়িতেই কোয়ারেন্টাইন পালনের অনুমতি পাবেন।

কোয়ারেন্টাইনের সময় মানুষের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করতে ইলেক্ট্রনিক রিস্টব্যান্ড ব্যবহার করে একই ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছিল হংকং এবং দক্ষিণ কোরিয়া।

সিঙ্গাপুরে ভ্রমণকারীদের জিপিএস এবং ব্লুটুথ সিগনাল ব্যবহারে এই ডিভাইসটি সচল করতে হবে। তারা বাড়িতে পৌঁছানোর পর ডিভাইসের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের নোটিফিকেশন পাবেন; তাদের এই নোটিফিকেশন প্রাপ্তি অবশ্যই স্বীকার করতে হবে।

ভ্রমণকারীরা বাড়ি থেকে বের হওয়ার অথবা ডিভাইসে যেকোনও ধরনের পরিবর্তন আনার চেষ্টা করলে তা কর্তৃপক্ষের কাছে সঙ্গে সঙ্গে সতর্কবার্তা পাঠিয়ে দেবে।

এর আগে হংকং গত মার্চে সেখানে আগত ভ্রমণার্থীদের কোয়ারেন্টাইন পালন কার্যকর করার জন্য একই ধরনের একটি হালকা ধাঁচের রিস্টব্যান্ড পরার নিয়ম চালু করে। হাসপাতালে রোগীদের শনাক্ত করার জন্য যে ধরনের ট্যাগ ব্যবহার করা হয় হংকংয়ের রিস্টব্যান্ডটি প্রায় সে ধরনের। কোয়ারেন্টাইন লঙ্ঘন করা হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত হতে দক্ষিণ কোরিয়াও ভ্রমণকারীদের জন্য একই ধরনের একটি রিস্টব্যান্ড ব্যবহার করে।

সিঙ্গাপুরের এই ডিভাইসটি দেখতে কেমন, সে ব্যাপারে বিস্তারিত কোনও তথ্য দেয়া হয়নি। এক বিবৃতিতে দেশটির সরকার বলেছে, এই ডিভাইসে ব্যক্তিগত তথ্য সংরক্ষণ করা হবে না এবং কোনও কণ্ঠ অথবা ভিডিও রেকর্ডিং ফাংশনও থাকবে না।

যাদের বয়স ১২ কিংবা তার কম তাদের এই ডিভাইস পরতে হবে না। ভাইরাস শনাক্ত করার জন্য এই নগর রাষ্ট্র সব বাসিন্দাকে একটি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস দেয়ার পরিকল্পনা করছে। এই ডিভাইসের মাধ্যমে কোয়ারেন্টাইন এবং সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মানা হচ্ছে কিনা তা জানা যাবে।

করোনার লাগাম টানতে সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপ লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থার ঘোষণা দিয়েছে সিঙ্গাপুর। এ ক্ষেত্রে সরকারের দেয়া ডিভাইস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। দেশটির সংক্রামক ব্যাধি আইনে বিধিনিষেধ লঙ্ঘনকারীদের ১০ হাজার সিঙ্গাপুরি ডলার জরিমানা অথবা ছয় মাস কিংবা তারও বেশি কারাদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডের কথা বলা হয়েছে।

এছাড়া যেসব বিদেশি শ্রমিক করোনা বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করবেন; তাদের ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার।

সিঙ্গাপুরে এখন পর্যন্ত ৫২ হাজার ৮২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের বেশিরভাগই দেশটিতে জীর্ন-শীর্ণ ডরমেটরিতে বসবাসরত অভিবাসী শ্রমিক।

Facebook Comments