বুড়িগঙ্গা সেতুতে ফাটল : ভিন্ন রুটে তীব্র যানজট ও ভোগান্তি

রাগিব শাহরিয়ার রাফিঃ
সোমবার রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চ উদ্ধারে আসা উদ্ধারকারী জাহাজের ধাক্কায় পোস্তগোলায় বুড়িগঙ্গা নদীর ওপর বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু-১ (প্রথম বুড়িগঙ্গা সেতু) সেতুটিতে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে।
ঘটনার পর ২৯ জুন সন্ধ্যা থেকে সেতুতে যানবাহন চলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তৃপক্ষ। সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) এসব তথ্য জানিয়েছে। মঙ্গলবার বিশেষজ্ঞ টিম সেতুটি পরিদর্শনের পর এতে যান চলাচল নিয়ে তাদের মতামত জানাবে।
কিন্ত এই সেতু বন্ধ হওয়ার কারনে সবচেয়ে বেশি চাপ পড়ছে বিকল্প পথে অর্থাৎ (কেরানীগঞ্জ-বুড়িগঙ্গা সেতু -২) এর রুটে। এই রাস্তায় সোমবার রাত থেকেই তীব্র যানজট লক্ষ্য করা যায়।
উল্লেখ্য এখানে প্রস্তাবিত ফ্লাইওভার ও রাস্তার কাজ চলার জন্য রাস্তায় ৩ ভাগের ২ ভাগ খোড়া হয়েছে এবং বাকি একভাগ দিয়ে যান চলাচল করছে। যে একভাগ দিয়ে যান চলাচল করছে সে রাস্তার মাঝেও রয়েছে অনেক বড় বড় গর্ত ও ভাঙা, যা যাত্রী ও যানবাহন উভয়ের জন্যই হুমকিস্বরূপ। ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক এর সব যানবাহন এই একটি রুটে আসায় এই অবস্থার সৃষ্টি হয়। এর ফলশ্রুতিতে তৈরী হচ্ছে তীব্র যানবাহনের সারি এবং সঠিক ব্যাবস্থাপনা না থাকার কারনে মানুষ ও যানবাহন কে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হচ্ছে।
এমতাবস্থায় চরম ভোগান্তির মুখে আছেন যাত্রীরা। যেখানে তাদেরকে নির্ধারিত সময় থেকে অনেক বেশি সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে গন্তব্যে পৌছার জন্য। তবে আশা করা যাচ্ছে বুড়িগঙ্গা সেতু-১ পর্যবেক্ষণ এর পর খুলে দিলে এই যানযট আর ভোগান্তি দুটোই নিরসন হবে।

Facebook Comments