ভোলায় জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করছে পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশন

এম শাহরিয়ার জিলন, ভোলা : টানা বর্ষণের ফলে ভোলার ২নং পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের নতুন বেড়িবাঁধের ভিতরে থাকা শত শত পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়ে। পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় অতিবৃষ্টির কারণে ওই এলাকায় সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতার। যার ফলে শত শত পরিবারকে পড়তে হয় চরম দুর্ভোগে। এই দুর্ভোগ নিরসনে এগিয়ে এসেছে ভোলার উত্তরের অন্যতম সামাজিক সংগঠন ‘পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশন’। ১৬ জুন (মঙ্গলবার) ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে পানিবন্দী মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে বৃষ্টি উপেক্ষা করে পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশনের সদস্য ও স্থানীয়দের স্বেচ্ছাশ্রমে পানি নিস্কাশন কাজ শুরু হয়। তেমাথা মসজিদ ও মোল্লা বাড়ি সংলগ্ন দুটি পয়েন্টে ৮০ ফুট পাইপ স্থাপনের মাধ্যমে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
পানিবন্দী হওয়া কয়েকটি পরিবার বলেন, আমরা শত শত পরিবার নতুন বেড়িবাঁধ সংলগ্ন বসবাস করছি। অতিবৃষ্টির কারণে পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় আমরা পানিবন্দী হয়ে পড়ি। পানির সঙ্গে যাবতীয় আবর্জনা ও বাথরুমে ময়লা নোংরা পানিতে একাকার হয়ে পড়ে। আমাদের চলাফেরা, রান্না-বান্না করতে খুব কষ্ট হয়েছে। শিশুরা এসব পানির কারণে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। আমাদের এই দুর্ভোগের কথা শুনে পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ আনোয়ার হোসেন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে পাইপ স্থাপন করে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করেছেন। এখন আমাদের বাড়ীর আশপাশ শুকনো, আগের মতো চলাফেরা করতে পারছি। আমাদের এই দুর্ভোগ নিরসনে এগিয়ে আসার জন্য পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, টানা বর্ষণের ফলে ইলিশার নতুন বেড়িবাঁধ সংলগ্ন শত শত পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়ে। খালের মুখগুলো বন্ধ থাকাতে পানি নামার কোন ব্যবস্থা না থাকায় পানিবন্দী হয়ে পড়ে এসব পরিবার। চলাফেরা, রান্না-রান্না সহ নানা দুর্ভোগে পড়তে হয় তাদেরকে। দুর্ভোগের শিকার এসব পরিবারের সমস্যার বিষয়টি আমার নজরে আসলে সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে পাইপ স্থাপন মাধ্যমে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করি। এই কাজে যুব ফাউন্ডেশনের সদস্য ও স্থানীয়রা নিরলস পরিশ্রম করেছে। ৪নং ওয়ার্ডের তেমাথা মসজিদ ও মোল্লা বাড়ি সংলগ্ন দুটি পয়েন্টে পাইপ বসিয়ে দেওয়ায় এখন শুকনো। আরো কিছু পয়েন্ট চিহ্নিত হয়েছে। এসব এলাকায় পানি নিস্কাশনের কাজ করে যাচ্ছে পূর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশন সদস্যরা। আগামী দিনে সকলের দোয়া ও সহযোগিতায় পুর্ব ইলিশা যুব ফাউন্ডেশন মানবতার সেবায় কাজ করে যাবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

Facebook Comments