ক্রিকেটারদের চিন্তার কারণ হবে ম্যাচ ফিটনেস

নিউজ ডেস্ক : লম্বা বিরতি থেকে ফিরে ক্রিকেটারদের চিন্তার কারণ হবে ম্যাচ ফিটনেস। তাই আছে ইনজুরিতে পড়ারও শঙ্কা। আর সেটা মাথায় রেখেই গাইডলাইন তৈরি করে দিয়েছে আইসিসি। পেইসারদের ক্ষেত্রে ফেরার চ্যালেঞ্জটা বেশ কঠিন। তবে বিধি-নিষেধ অনুসরণ করে এগোলো খুব একটা সমস্যা হবে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

দেশে করোনা শনাক্তের দুইদিন পর ১১ মার্চ মিরপুরে সবশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। এরপর থেকে কোয়ারেন্টিনে ক্রিকেট থাকায় একে একে স্থগিত হয়েছে আয়াল্যান্ড সফর ও অস্ট্রেলিয়া সিরিজ। তাই অন্যদের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা, প্রিয় ক্রিকেটকে বড্ড মিস করছেন সবাই।

ওদিকে সূচি বিপর্যয় এড়াতে ঝুঁকির সত্ত্বেও ক্রিকেট ফেরানোর চ্যালেঞ্জ আইসিসির আর সে লক্ষ্যেই গাইডলাইন তৈরি করে দিয়েছে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি।

যেখানে টেস্ট ম্যাচের আগে ৮-১২ সপ্তাহ ট্রেনিংয়ের কথা বলা হয়েছে। ওডিআই ও টি-টোয়েন্টির ক্ষেত্রে সেটা ৬ সপ্তাহ। বিরতি থেকে খেলায় ফেরার ক্ষেত্রে এই গাইডলাইন কতটা যৌক্তিক?

এত দিন পর মাঠে ফিরে টেস্ট ম্যাচের ধকল নেয়াটা বেশ কঠিন। তবে চ্যালেঞ্জটা বেশি পেইসারদের। ইনজুরি শঙ্কা থেকেই অন্তত দুই মাস প্রস্ততি নিয়েই ম্যাচ খেলার কথা বলা আছে আইসিসির গাইডলাইনেও। ফিজিক্যাল ফিটনেসের সঙ্গে মেন্টাল অ্যাডজাস্টমেন্ট জরুরি। তাই মাঠে ফিরে ঠিক ওখানটাতেই গুরুত্ব দিতে হবে সবার আগে।

Facebook Comments