আইসোলেশনে থাকা রোগীরা যা খেতে পারবেন

ফিচার ডেস্ক : কারো শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে বা উপসর্গ দেখা দিলে; তখন তাকে সবার থেকে আলাদা রেখে চিকিৎসাসেবা দিতে হয়। সেটাই মূলত আইসোলেশন। এখানে চিকিৎসার পাশাপাশি রোগীর খাদ্যাভ্যাসের দিকে নজর দেওয়া ভীষণ জরুরি। আসুন জেনে নেই আইসোলেশনে থাকা রোগীরা কী খাবেন, কী খাবেন না-

১. আক্রান্ত ব্যক্তিকে প্রতিদিন ২-৩ লিটার পানি পান করতে হবে।
২. বাড়িতে পরিচ্ছন্নভাবে ফোটানো বিশুদ্ধ পানি পরিষ্কার বোতলে ভরে রাখবেন।
৩. জ্বর থাকলে আরও বেশি পানি পান করতে হবে।
৪. ডাবের পানি, ফলের রস, লেবুর শরবত ইত্যাদিও দেওয়া যেতে পারে।
৫. রোগীকে যথেষ্ট পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে।
৬. খাবারে মাছ, মুরগি, ডাল, বীজজাতীয় খাবার, দুধ, ডিম ইত্যাদি থাকতে হবে।
৭. প্রচুর শাক-সবজি, গাজর, মিষ্টি আলু, পালং শাক, লেটুস, টমেটো খেতে হবে।
৮. ডায়াবেটিস বা কিডনি জটিলতা থাকলে খাবারের বিধি-নিষেধ মেনে চলতে হবে।
৯. খাবারে যথেষ্ট ভিটামিন সি, বি৬, এ, ডি, জিঙ্ক, ফলেট, আয়রন ও আঁশ থাকা দরকার।
১০. ফলের মধ্যে পেঁপে, কমলা, মাল্টা, লেবু, পেয়ারা, আম ইত্যাদি খাবেন।
১১. মাঝে মাঝে বাদাম, আখরোট, খেজুর, দই ইত্যাদি খেতে পারেন।
১২. কাশি বা গলাব্যথা হলে মধু ছাড়াও মধু-দারুচিনি-লবঙ্গ-আদা মিশ্রিত গরম পানি খাবেন।
১৩. অথবা লেবু-আদা-মধু মিশ্রিত লিকার চা এবং মুরগির গরম স্যুপ বারবার খাবেন।
১৪. দারুচিনি, গোলমরিচ, কালিজিরা ইত্যাদিও কাশি, গলাব্যথা কমাতে সাহায্য করে।
১৫. চিনিযুক্ত পানীয়, কেক, পেস্ট্রি ইত্যাদি না খাওয়াই ভালো।
১৬. চর্বিযুক্ত খাবার, বেশি তেলে ভাজা-পোড়া খাবারও খাবেন না।

Facebook Comments