শ্রীপুরে বণিক সমিতির উদ্যোগে ১৮ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

রাকিবুল হাসান শ্রীপুর উপজেলা প্রতিনিধি : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বরমী বাজার শিল্প বণিক সমিতির উদ্যোগে ১৮ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের কারণে জরুরি কাজ ছাড়া বাড়ি থেকে মানুষকে বের না হওয়ার জন্য বিশেষভাবে সতর্ক করা হয়েছে।

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের কিছু দোকান ছাড়া বাকি সব বন্ধ থাকায় বরমী বাজারের হোটেল শ্রমিক ও পরিচ্ছন্ন কর্মীরা বেকার হয়ে পড়েছে। বেকার হয়ে পড়েছে বাজারের কুলি, কামার, শ্রমিক, মুচিসহ সমাজে এমন অনেক লোক রয়েছে যারা কোন
সময় হাত পেতে সাহায্য সহযোগিতা নেয়নি নেওয়ার প্রয়োজন পড়েনি, কিন্তু বর্তমান ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে তারা কারও কাছে বলতেও পারছেনা, কারও কাছে হাতও পাততে পারছেনা। নিরবে নিভৃতে কষ্টে দূর্বিসহ দিনাতিপাত করছেন। সর্ব মোট ১,৮০০ শত লোকজনকে এ সময় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে সামাজিক দুরত্ব বঝায় রেখে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

এমন সংকটময় মুহুূর্তে তাদের পাশে দাঁড়ালো বরমী বাজার বণিক সমিতির উদ্যােগে বাজার পরিচ্ছন্ন কর্মীদের পরিবারের মধ্যে দশ কেজি চাউল দেয়া হয়।

এসময় বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির সরকার বলেন, গাজীপুরের -৩ আসনের সংসদ সদস্য জনাব ইকবাল হোসেন সবুজ এমপির নির্দেশনায় আমাদের বরমী ইউনিয়নের অসহায়-সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে থাকা অব্যাহত থাকবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, শ্রীপুর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন মাহতাব। বরমী বাজার বণিক সমিতির সভাপতি আবুল হাসেম এবং সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির সরকার ও নাগরি হাসপাতালের ডিরেক্টর।
গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাফি উদ্দিন মোড়ল, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য শেখ আঃ লতিফ, বরমী ইউনিয়নের সভাপতি আলী আমজাদ পন্ডিত ও বরমী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শামসুল হক বাদল সরকার, বরমী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ড মেম্বার খন্দকার হারুনুর রশীদ।
এস এম ফয়সাল আবেদিন আরও অনেকে। এ সময় সার্বিক সহযোগিতা করেন শ্রমিক নেতা রফিকুল ইসলাম রবি, কাওসার মৃধা, স্বপন প্রধান, রতন,ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গ। এসময় গুরুত্বপুর্ন বক্তব্য রেখেছেন বরমী বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির সরকার এবং নাগরিক হাসপাতালের ডিরেক্টর।
এই সময়ে সবারই উচিত অসহায় এই মানুষদের পাশে এসে দাঁড়ানো। যার যার অবস্থান থেকে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী কিছু করা। আমি সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে এসেছি তা অব্যাহত থাকবে। ইনশাল্লাহ, আসুন আমরা সচেতন হই অন্যকে সচেতন করি তাহলে আমরা গড়তে পারবো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com