বাংলাদেশ কৃষিতে যুগান্তকারি সফলতা অর্জন করেছে : কেসিসি মেয়র

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, বাংলাদেশ কৃষিতে যুগান্তকারি সফলতা অর্জন করেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নির্দেশনার কারণেই এক সময়ের খাদ্য ঘাটতির বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াতে সক্ষম হয়। তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বনির্ভর সোনার বাংলা গড়ে তুলতে সবুজ বিপ্লবের ডাক দিয়েছিলেন। এমনকি কৃষি সম্প্রসারণের জন্য তিনি মানুষকে ছাদে গাছ লাগানোরও পরামর্শ দেন। কিন্তু ঘাতকের নির্মম বুলেটে নিহত হবার পর সে প্রচেষ্টা থেমে যায়। পরবর্তীতে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতাসীন হবার পর আবার কৃষি ক্ষেত্রে উন্নয়নের যাত্রা শুরু হতে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ এখন উদ্বৃত্ত খাদ্যশষ্যের দেশ হবার গৌরব অর্জন করেছে।
সিটি মেয়র আজ মঙ্গলবার সকালে রূপসায় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর চত্বরে ‘কৃষি মেলা ২০২০’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। গোপালগঞ্জ, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় মেট্রোপলিটন কৃষি অফিস-খুলনা তিনদিন ব্যাপী এ মেলার আয়োজন করে। সিটি মেয়র বেলুন উড়িয়ে এ মেলার উদ্বোধন করেন এবং এ উপলক্ষে আয়োজিত বর্ণাঢ্য র‌্যালীর নেতৃত্ব দেন। এবারের মেলার প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘‘মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার-সবার জন্য নিরাপদ ও পুষ্টি সম্মত খাবার’’
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর-খুলনার উপপরিচালক পঙ্কজ কান্তি মজুমদার-এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর-খুলনাঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কাজী আব্দুল মান্নান, গোপালগঞ্জ, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও পিরোজপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক আলমগীর বিশ্বাস, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. সর্দার শফিকুল ইসলাম ও কৃষকলীগ নেতা শ্যামল সিংহ রায়। অনুষ্ঠানে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী, নগরীর গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও কৃষকগণ উপস্থিত ছিলেন। পরে সিটি মেয়র মেলায় স্থাপিত স্টলসমূহ পরিদর্শন করেন।
পরে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগরীর সরকারি পাইওনিয়ার মহিলা কলেজে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন। কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) জাহানারা’র সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন খুলনা মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা ও খুলনা সদর থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর ফকির মো: সাইফুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে অধ্যাপক শেখ শওকত হোসেন, কৃষ্ণপদ মন্ডলসহ কালেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
বিকেলে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক নগরীর বানিয়াখামার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শেখ আব্দুল আজিজ-এর সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (মাধ্যমিক) খোন্দকার রুহুল আমিন, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এমডিএ বাবুল রানা, আওয়ামীলীগ নেতা শেখ হায়দার আলী, কেসিসি’র সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর মাহমুদা বেগম ও খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মুন্সী মাহবুব আলম সোহাগ। স্বাগত বক্তৃতা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: রবিউল ইসলাম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Facebook Comments