দুই সতিনের মারামারি, কামড়ে ছিঁড়ে নিলেন কান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ‘দুই সতিনে ঘর, খোদাই রক্ষা কর’— সতিন নিয়ে এমন অনেক প্রবাদ-প্রবচন প্রচলিত রয়েছে বাংলা ভাষায়। সতিন বলতেই যেন অশান্তি আর দাম্পত্য কলহের জীবন। গতকাল শুক্রবার তেমনি দুই সতিনে ঝগড়ার সময় একজন আরেকজনের কান কামড়ে ছিঁড়ে নেয়ার মতো চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার শীতগ্রামের নলপুকুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। দুই সতিনে ঝগড়ার সময় দ্বিতীয় স্ত্রীর কান কামড়ে ছিঁড়ে নেন প্রথমজন। পরে স্থানীয়রা ঘটনার শিকার নারীকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান।

ইতোমধ্যে অস্ত্রোপচার করে কান প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। তবে অস্ত্রোপচার আদৌ সফল হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে এখনই কিছু নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছেন না চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন আহত নারীর বাবা। এদিকে ঘটনার পর থেকেই পালাতক অভিযুক্ত নারী।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে মইনুদ্দিন আলম নামের এক ব্যক্তির দুই স্ত্রী হালিমা এবং আশরেফার মধ্যে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে ঝগড়া শুরু হয়। পরে তা হাতাহাতি পর্যন্ত গড়ায়। একপর্যায়ে হঠাৎ মইনুদ্দিনের প্রথম স্ত্রী হালিমা বিবি দ্বিতীয় স্ত্রী আশরেফা বেগমের ডান কান কামড়ে ছিঁড়ে নেন।

তাদের স্বামী মইনুদ্দিন আলম পেশায় গাড়ি চালক। ঘটনার সময় তিনি বাড়ি ছিলেন না। ঘটনার পর বাড়িতে ফিরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি গাড়ি নিয়ে মালদহতে ছিলাম। মোবাইলে জানতে পারি প্রথম স্ত্রী ছোটজনের কান কামড়ে ছিঁড়ে নিয়েছে। মাথা ফাটিয়েছে। অপারেশনের কথা শুনে রায়গঞ্জে ছুটে আসি।’

স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য মনজুর আলম বলেন, ‘ওই পরিবারের দুই সতিনের মধ্যে সর্বদা ঝগড়া-কলহ লেগেই থাকত। গতকাল সেটা মারামারিতে গড়ায়। কিন্তু কান ছিঁড়ে নেয়ার ঘটনা ঘটবে এটা কেউ ভাবেনি।’ চিকিৎসকরা বলছেন, ছেঁড়া কান জোড়া লাগবে কিনা তা এখনই বলা সম্ভব নয়। কয়েক দিন যাওয়ার পর বোঝা যাবে।

রায়গঞ্জের পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, ‘অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ওই নারীকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।’

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com