মেয়েকে হত্যা করে অন্তঃসত্ত্বা মায়ের আত্মহত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট : যশোরের শার্শায় স্বর্ণের চেন চুরির মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেরে নিজের চার বছরের মেয়েকে গলাটিপে হত্যা করে আত্মহত্যা করেছেন জুলেখা বেগম নামে এক অন্তঃসত্ত্বা মা। পুলিশ তার লাশ উদ্ধার ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করেছে।
আটককৃতরা হলেন- অভিযুক্ত দোকানদার আলাউদ্দীনের মেয়ে জুলি ও জুলির মা রেসমা বেগম।
রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) সকালে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতের স্বজন ও প্রতিবেশীরা জানান, ৬ মাস আগে প্রতিবেশী আলাউদ্দীনের বাড়ি থেকে স্বর্ণের চেইন চুরি হয়। গত শনিবার দুপুরে জুলেখা বেগম আলাউদ্দীনের দোকানে যায় কেনাকাটা করতে। এসময় আলাউদ্দীনের মেয়ে জুলি জুলেখার গলা থেকে জোর করে চেইন খুলে নেয় এবং চুরির বদনাম দিয়ে মারধরও করে।
এলাকাবাসী জানান, চেইনটি জুলেখ চুরি করেনি। তার মা তাকে দিয়েছিল। এমন মিথ্যা অপবাদ সইতে না পেরে বাড়ি ফিরে এসে পরদিন রোববার সকালে নিজের মেয়েকে গলা টিপে মেরে সে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস আত্মহত্যা করে। কোনো প্রমাণ না দিয়ে এভাবে জোর করে গলা থেকে চেইন কাড়া ঠিক হয়নি। গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মাধ্যমে সালিশ, বৈঠক করলে এভাবে তিনটি প্রাণ ঝরে যেত না।
শার্শার নাভারণ সার্কেল পুলিশের এএসপি জুয়েল ইমরান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। যাদের কারণে এমন মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অভিযুক্ত দুইজনকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

Facebook Comments