ঘুম থেকে তুলে নিয়ে গরু চুরির অপবাদে নির্মম নির্যাতন

অপরাধ ডেস্ক : 

ঘুম থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গরু চুরির অপবাদে এক শিশুকে হাত-পা বেঁধে নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। গাইবান্ধায় শতশত মানুষের সামনে নির্দয়ভাবে পেটানো হয় শিশুটিকে। এ ঘটনায় কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি পুলিশ।

গভীর রাতে ঘুমন্ত রাফিকুলকে বাড়ি থেকে শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) ডেকে নিয়ে যায় প্রতিবেশী ফজলু, ইয়াজল ও নাজমুল। রাতভর ফজলুর বাড়িতে বেঁধে রেখে মারধরের পর রাফিকুলের পরিবারের কাছে ১০ হাজার টাকা দাবি করেন তারা। তাৎক্ষণিক তিন হাজার টাকা দিলেও মন গলেনি তাদের। পরদিন সকালে আবারো শত শত মানুষের সামনে হাত পা বেঁধে রাফিকুলের ওপর চলে পাশবিক নির্যাতন। রাফিকুল ও তার ভাইয়ের অভিযোগ, পূর্ব শত্রুতার জেরে গরুর চুরির মিথ্যা অভিযোগে এমন নির্যাতন চালায় তারা।

নির্যাতিত রাফিকুল বলে, রাত ১১টার দিকে ওদের বাসায় আমাকে নিয়ে মারধর করে।রাফিকুলের বড় ভাই বলেন, আমার ভাইকে যেভাবে নির্যাতন করা হয়েছে তার সুষ্ঠু বিচার করেন আপনারা।প্রায় ঘণ্টা দুয়েক নির্মম নির্যাতনের পর নিস্তেজ হয়ে পড়ে রাফিকুল। পরে তাকে উদ্ধার করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন পরিবারের লোকজন। শিশুটি আশঙ্কামুক্ত বলে জানান চিকিৎসকরা।

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. বিশ্বেশ্বর চন্দ্র বর্মণ বলেন, যেটা দেখছি তাতে অবস্থা খুব একটা খারাপ না, উন্নতির দিকে।অভিযুক্তদের হুমকির মুখে থানায় যেতে পারেনি বলে দাবি করেন রাফিকুলের বড় ভাবি।

তিনি বলেন, তারা বলে মামলা করলে তোমাদের ঘর-বাড়ি ভেঙে দেব। আমরা খুব ভয়ে আছি। বাড়িতে যেতে পারছি না।এ ঘটনায় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেন পুলিশ সুপার মো. তৌহিদুল ইসলাম।তিনি বলেন, ওসি সুন্দরগঞ্জকে বিষয়টা বলেছি। তিনি ব্যবস্থা নিচ্ছেন।

সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র নুরুন্নবী প্রামাণিক সাজুর স্বজনরাও শিশুটির ওপর নির্যাতন চালায় বলে অভিযোগ রাফিকুলের পরিবারের। অভাবী পরিবারের সন্তান রাফিকুল ইট ভাটার শ্রমিক।

খবর কৃতজ্ঞতা : সময়

Facebook Comments