মেসিদের চিন্তায় ঘুম হারাম ব্রাজিল কোচ তিতের

ক্রীড়া ডেস্ক : ব্রাজিলে এখন গভীর রাত। ফুটবল পাগল দেশটিতে সমস্ত মানুষ এখন ঘুমে মগ্ন। কিন্ত এর মাঝেও একজনের চোখে ঘুম নেই। তিনি আর কেউ নন- ব্রাজিল ফুটবল দলের কোচ আদেনর লিয়োনারদো বাচ্চি। ফুটবল বিশ্বে যাকে সবাই চেনেন তিতে নামে। তার চোখের ঘুম কেড়ে নিয়েছে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনাল। আর মাত্র ১৮ ঘন্টা পর যে সেমিফাইনালে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ আর্জেন্টিনা। আসলে সেমিফাইনালের প্রতিপক্ষই চোখের পাতা এক করতে দিচ্ছে না ৫৮ বছর বয়সী এই ফুটবল প্রফেসরকে।

তিতে ঘুমাতে পারছে না- বিষয়টি তিনি নিজেই জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যমকে। আগের রাতে না ঘুমাতে পেরে রাত সোয়া তিনটায় বিছানা ছেড়ে উঠে পায়চারি করেছেন উল্লেখ করে তিতে বলেন,‘আমি স্বাভাবিকভাবে ঘুমোতে পারছি না। কিন্তু আমি তো সুপারম্যান নই। আমাকে তো ঘুমোতে হবে। কিন্তু পারছি না। গতরাতে সোয়া ৩টায় জেগে শুধু ভেবেছি পরের দিন সেমিফাইনাল, কী করবো আমরা? আমাকে ভাবতে হচ্ছে একজন কোচ হিসেবে। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে সব কোচকেই কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হয়। এটা কেবল আমার বেলায় নয়, আর্জেন্টিনার কোচ স্কালোনিও হয়তো করছেন।’

পাঁচ বছর আগে ঘরের মাঠের বিশ্বকাপে যে মাঠে সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল ব্রাজিল, বেলো হরিজন্তের সেই মিনেইরো স্টেডিয়ামেই এবারে সেমিফাইনাল খেলতে নামছে সেলেসাওরা। যদিও এ মাঠে রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইয়ে তারা ৩-০ গোলে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। কিন্তু সেটা তো আর সেমিফাইনাল ছিল না!

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ মানেই দুই দলের কোচ-খেলোয়াড়দের মধ্যে বাড়তি স্নায়ুচাপ। সে চাপ থেকেই কোচরা ছিঁড়তে চান নিজের মাথার চুল। ব্রাজিল কোচ তার নির্ঘুম রাতের কথা প্রকাশ করেছেন। আর্জেন্টাইন কোচ হয়তো তা চেপে যাচ্ছেন।

এ ক’দিন ধরে ব্রাজিলের সাবেক-বর্তমান খেলোয়াড়রা মেসিকে নিয়ে বেশি সতর্ক থাকার কথা বলেছেন। কিন্তু আর্জেন্টিনা দলে কি মেসি একাই খেলবেন? তিতের চোখে দলে আরো বিপদজনক খেলোয়াড় আছে।

‘এই ম্যাচে দুই দলে খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত কারিশমারও লড়াই হবে। লিওনেল মেসি তো আছেনই, তাদের দলে আগুয়েরোর মতো ফুটবলারও আছেন। সবাইকেই তো সামলাতে হবে’-বলেছেন ব্রাজিলের কোচ।

মেসি প্রসঙ্গে ব্রাজিল কোচ আরও বলেছেন,‘আপনি চাইলেই মেসিকে বাদ দিয়ে খেলতে পারবে না। তাকে মোকাবিলা করতেই হবে। সেক্ষেত্রে মেসিকে কতটা কম জায়গা দেয়া যায়, কতটা আটকে রাখা যায় মাঠে সে পরিকল্পনা থাকতে হবে।’

Facebook Comments