পুতিন-ট্রাম্প যোগসাজসের অভিযোগ জোরাল হলো

নতুন প্যারাডাইস পেপার্স কেলেংকারিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রশাসনের বাণিজ্যমন্ত্রী উইলবর রসের নাম আসায় রাশিয়ার সঙ্গে ট্রাম্পের যোগসাজসের বিষয়টি আরো জোরালো হয়েছে। যদিও উইলবর রস জানিয়েছেন, রাশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যে নীতিবহির্ভূত কিছু ঘটেনি। তালিকায় নাম থাকায় সমালোচনার মুখে পড়েছেন ‘স্বচ্ছ’ ভাবমূর্তির কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তালিকায় আছে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী শওকত আজিজের নাম। এদিকে তালিকায় বিশ্বের ১২০ জনের বেশি রাজনীতিক, ভারতের চলচ্চিত্র তারকা অমিতাভ বচ্চনসহ দেশটির ৭১৪ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম রয়েছে। খবর বিবিসি, সিএনএন ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার।
ইতোমধ্যে ট্রাম্পের সাবেক নির্বাচনী ব্যবস্থাপক পল ম্যানাফোর্টসহ দুইজনের বিরুদ্ধে রুশ তদন্তে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের শুনানি চলছে। রবিবার ফাঁস হওয়া দলিলপত্রে দেখা গেছে, মার্কিন বাণিজ্যমন্ত্রী উইলবার রসের এমন একটি কোম্পানিতে শেয়ার আছে যার সাথে ক্রেমলিনের সম্পর্ক আছে। এই দলিলগুলো থেকে উদঘাটিত হয়েছে যে রসের ‘নেভিগেটর হোল্ডিংস’ নামে একটি শিপিং কোম্পানিতে মালিকানায় অংশীদারিত্ব রয়েছে যা রুশ জ্বালানি কোম্পানি সিবুর’র জন্য তেল ও গ্যাস পরিবহন করে লাখ লাখ ডলার আয় করে থাকে। সিবুর মালিকের মধ্যে দু’জন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওতায় আছেন এবং তারা প্রেসিডেন্ট পুতিনের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত। একজন পুতিনের জামাতা বলে জানা গেছে। রস যদিও অন্যায় কিছু করেননি, কিন্তু এই তথ্য প্রকাশ পাওয়াটা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য অস্বস্তিকর হতে পারে। আর ট্রাম্পের সঙ্গে রাশিয়ার একটা যোগসাজস আছে বিরোধীদের সেই অভিযোগ আরো জোরালো হলো বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর তহবিল উত্তোলক কেম্যান দ্বীপে করফাঁকির পরিকল্পনায় জড়িত এবং করফাঁকিতে কানাডার প্রধানমন্ত্রী ট্রুডোর তহবিল উত্তোলককে জড়িয়েছে প্যারাডাইস পেপার্স। যদিও এটা কতটা সত্য তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিশ্বে অভিবাসীসহ বিভিন্ন ইস্যুতে ট্রুডোর একটি সুনাম আছে।
প্যারাডাইস কেলেংকারিতে ১৮০ টি দেশের ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম আছে। এর মধ্যে ভারতের অবস্থান ১৯ তম। দেশটির ৭১৪ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম রয়েছে কর ফাঁকির তালিকায়। আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, তালিকায় নাম রয়েছে মোদী সরকারের বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী জয়ন্ত সিনহা, বিজেপির রাজ্যসভার এমপি তথা সাবেক সাংবাদিক আর কে সিংহ, বিজয় মাল্য থেকে শুরু করে কর্পোরেট লবিস্ট নীরা রাডিয়ার। আছে রাজস্থানের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলত, কংগ্রেস নেতা সচিন পাইলটের নাম। পানামা কেলেঙ্কারির পর প্যারাডাইস কেলেঙ্কারিতেও জড়ালেন মেগা স্টার অমিতাভ বচ্চন।
মোদী সরকারের নোটবন্দির বর্ষপূর্তির ৪৮ ঘণ্টা আগে বিশ্বজোড়া আর্থিক কেলেংকারীর খোঁজ পেয়েছে ইন্টারন্যাশনাল কনসর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্ট (আইসিআইজে)। বিশ্বের ১০০টি সংবাদ সংস্থার যৌথ ওই তদন্তে উঠে এসেছে প্রায় ১ কোটি ৩৫ লাখ নথিপত্রের বিপুল ভাণ্ডার। সেই তদন্তে দেখা গেছে, নামে-বেনামের রাষ্ট্রপ্রধান, রাজনীতিক, শিল্পপতি, চলচ্চিত্র তারকাসহ সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা বিদেশে কালো টাকা জমিয়ে রেখেছেন। নামে ও বেনামে একের পর এক বেআইনি কোম্পানি খুলে দিয়ে চলেছেন আয়কর ফাঁকি।
Facebook Comments