রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে : শাহরিয়ার কবির

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি লেখক-সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।
বৃহস্পতিবার বিকালে রাজশাহীতে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির রাজশাহী মহানগর শাখা ও স্টুডেন্ট ফ্রন্টের উদ্যোগে ‘বার্মায় গণহত্যা ও সন্ত্রাস: সরকার ও নাগরিক সমাজের করণীয়’ শীর্ষক এই আলোচনায় শাহরিয়ার কবির বলেন, অসহায় রোহিঙ্গাদের দরিদ্রতাকে পুঁজি করে জামায়াত-বিএনপি তাদের সন্ত্রাসবাদের দিকে উস্কে দিচ্ছে।
তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ভাষণে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ দফা দিকনির্দেশনা সারাবিশ্বে প্রশংসিত হচ্ছে। বাংলাদেশ এক মাসের কম সময়ের মধ্যে মানবিক কারণে পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে মানবতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এ জন্য আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ বলছে। এ অবস্থায় বিএনপি-জামায়াত অপপ্রচারে নেমেছে।
শাহরিয়ার কবির বলেন, মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়ে এ পর্যন্ত দশ লাখের মতো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী আমাদের দেশে আশ্রয় নিয়েছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। কিন্তু আমাদের মতো জনবহুল দেশের পক্ষে এই বিপুলসংখ্যক মানুষের দায়িত্ব নেয়া সম্ভব নয়। এটা মানবিক বিপর্যয়। রোহিঙ্গাদের দায় বাংলাদেশের একার নয়, এর দায় সারাবিশ্বের।
তিনি আরো বলেন, বার্মা সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর যে জাতিগত নিধন চালাচ্ছে- তা বন্ধে আন্তর্জাতিক চাপ বাড়াতে হবে। এ জন্য আমরা ২৫ সদস্যবিশিষ্ট নাগরিক কমিশন গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই কমিশন রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা তদন্ত করবে। প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে এবং রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানোর জন্য যা কিছু সম্ভব নির্মূল কমিটি তা করবে।
অনুষ্ঠানে সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক সাইমা খাতুন বিথীর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে ছিলেন- নির্মূল কমিটির রাজশাহী মহানগর শাখার সভাপতি অধ্যাপক সুজিত কুমার সরকার, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ কামরুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান আলী বরজাহান, ইয়াসিন আলী, মহিলা পরিষদের জেলা শাখার সভাপতি কল্পনা রায় প্রমুখ।

Facebook Comments