খালেদার কৌশল বুঝতে আওয়ামী লীগের দু’শ বছর লাগবে

130823-farukএকুশেরআলো২৪ডেস্ক: ১৮ দলের নতুন কর্মসূচিকে রাজনৈতিক কৌশল দাবি করে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, “খালেদা জিয়ার কৌশল বুঝতে আওয়ামী লীগের দু’শ বছর লাগবে। তাই প্রধানমন্ত্রীকে বলবো, আগামী অধিবেশনে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার বিল এনে সে পদ্ধতিতে নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হতে দেয়া হবে না। ”শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার পরিষদ আয়োজিত ‘বর্তমান প্রেক্ষাপটে মানবাধিকার ও গণতন্ত্র’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় তিনি একথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান ড. রফিকুল ইসলাম।

নির্দলীয় সরকারের দাবিতে ১৮ দলের নতুন কর্মসূচি প্রসঙ্গে ফারুক বলেন, “আপনারা অনেকে বলছেন ‘পানসে’ কর্মসূচি দিয়ে শেখ হাসিনার পতন ঘটনো যাবে না এবং দাবি আদায় হবে না। আমি বলবো, খালেদা জিয়ার এই কৌশল বুঝতে আওয়ামী লীগের দু’শ বছর লাগবে।”

আওয়ামী লীগ নিজেদের প্রবীণ দল দাবি করলেও নবীনের মতো কথা বলছে- এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, “তাই সরকারকে বলবো, দয়া করে দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যাবেন না। এখনো সমঝোতার সুযোগ আছে। সংসদে আমরা যোগ দিব কিনা তা দল সিদ্ধান্ত নিবে। এছাড়া বিল আনার মতো সংখ্যাগরিষ্ঠতা আমাদের নেই। তাই আপনারা বিল আনুন এবং নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন।”

সংবিধান মতো দেশ চলছে- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে ফারুক বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর পাশে বসে মন্ত্রী ও উপদেষ্টারা বলছেন কেউ হরতাল দিলে ঘরে ঘরে গিয়ে হত্যা করা হবে। অথচ তিনি এর কোনো প্রতিবাদ করেন না।তাহলে কিভাবে বুঝবো দেশ সংবিধান মতো চলছে।দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব আপনার হাতে সুরক্ষা হবে না।”

আওয়ামী লীগের উদ্দেশে তিনি বলেন, “গত সাড়ে চার বছরে যা করেছেন তাতে জীবনেও ক্ষমতায় আসতে পারবেন না।”

এতে আরো বক্তব্য দেন যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম ও স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ।

Facebook Comments