রেস্তোরায় খাবারের ছবি তোলায় স্ত্রীকে তালাক

রেস্তোরায় টেবিলে সাজানো খাবার সামনে ক্ষুধার্থ স্বামী। কিন্তু স্ত্রীর সেদিকে কোন খেয়াল নেই। তিনি নাকি ছবি তুলে স্ন্যাপচ্যাটে শেয়ার করতেই ব্যস্ত। আর তাতেই ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রী তালাক দিয়ে বসলেন জর্ডানের এক ব্যক্তি।

খালিজটাইমস জানায়, ঘটনাটি ঘটেছে আম্মানের এক নামি রেস্তোরায় গেল রবিবার।

এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, রেস্তোরায় আসন পেতে তাদের প্রায় ৩০মিনিট অপেক্ষা করতে হয়েছিল। যদিও তাদের নাম কিংবা পরিচয় জানা যায়নি। রেস্তোরায় আসন পাওয়ার পর টেবিলে খাবার পৌছাতে সময় নেয় আরো বেশ কিছুক্ষণ।

আল অ্যারাবিয়া সূত্রে জানা যায়, আম্মানের এক নামী রেস্তোরায় স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে নৈশভোজে গিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত রেস্তোরায় তখন ব্যাপক ভিড়। ফলে পছন্দের খাবার টেবিলে পেতে ঘণ্টা খানেক অপেক্ষা করতে হয় তাদের। যতক্ষণে খাবার হাতে পেলেন, ততক্ষণে ক্ষুধায় পেটে ইঁদুর দৌড় চলছে। খাবার পেয়েই ওই ব্যক্তি যখন মোটামুটি তাতে ঝাঁপাতে প্রস্তুত হচ্ছেন, তখনই তাতে বাধ সাধলেন তার স্ত্রী।

স্ত্রী আবদার করে বসেন, আগে খাবারের ছবি বন্ধুদের সঙ্গে স্ন্যাপচ্যাটে শেয়ার করবো, তারপর খাবো।

প্রাথমিক ভাবে স্ত্রীর আবদান মেনে নিলেও, ব্যাপার স্যাপার দেখে মনে মনে বেজায় চটে গিয়েছিলেন ওই ভদ্রলোক। কিছুক্ষণ অপেক্ষার পর মনে হয়, তার কষ্টটা স্ত্রী মোটেই পাত্তা দিচ্ছেন না। উল্টে সামনের সাজানো খাবার না খেয়ে ছবির পর ছবি তুলেই চলেছেন। আর মাথা ঠিক রাখতে পারেননি তিনি। এক পর্যায়ে স্ত্রীর সঙ্গে চিৎকার শুরু করেন এবং তিন তালাক দিয়ে রেস্তোরা ছেড়ে বেড়িয়ে যান। ।

পরে রেস্তোরায় খাবারের দাম চুকিয়ে যেতে হয়েছে সদ্য বিচ্ছেদ হওয়া সেই স্ত্রীকে।

যদিও স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের দাবি, ওই ব্যক্তি রাগের মাথায় স্ত্রীকে তালাক দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার ফলে রেস্তোরা কর্তৃপক্ষ খাবারের দাম পর্যন্ত পাননি।

Facebook Comments