৫৫ বছর পর চালু হচ্ছে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি ট্রেন চলাচল

বাংলাদেশ ও ভারত রেলপথ কর্তৃপক্ষের প্রস্তুতি শেষে দীর্ঘ ৫৫ বছর পর বৃহস্পতিবার (১৭ ডিসেম্বর) থেকে চালু হচ্ছে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে এদিন থেকে মালবাহী ট্রেনের মাধ্যমে এ রুটে ট্রেন চলাচল করবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ রুটের উদ্বোধন করবেন।

বাংলাদেশের নীলফামারী জেলার সীমান্তবর্তী রেল স্টেশনটির নাম চিলাহাটি। এ স্টেশন থেকে সীমান্ত ৬ দশমিক ৭২৪ কিলোমিটার। অপরদিকে ভারতের হলদিবাড়ি রেলস্টেশন থেকে ৬ দশমিক ৫ কিলোমিটার দূরে বাংলাদেশ সীমান্ত। দুই দেশের রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সীমান্ত পর্যন্ত রেলপথ নির্মানের কাজ শেষ করেছে।

বিজয়ের ৫০ বছরে পদার্পণ উপলক্ষ্যে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় এই রেলপথের উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনের দিন মালবাহী ট্রেন চিলাহাটি স্টেশন থেকে ভারতের হলদিবাড়ি স্টেশনে পৌঁছাবে। আর আগামী ২৬ মার্চ থেকে চলাচল করবে যাত্রীবাহী ট্রেন।
এ রেলপথের কারণে এলাকার বেকার ও কর্মহীনরা কাজ পাবেন বলে আনন্দে উদ্বেলিত চিলাহাটিসহ নীলফামারীবাসী।

শুধু চিলাহাটি-হলদিবাড়িই নয়, এ রেলপথে ঢাকা-শিলিগুড়ি, কলকাতা-শিলিগুড়ি ও খুলনা-শিলিগুড়ি রুটে ট্রেন চলাচল করবে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুূজন।

রেলকে সাশ্রয়ী, আরামদায়ক ও নিরাপদ যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে গড়ে তুলতে রেলপথ মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান রেলসচিব রেজা সেলিম।

চিলাহাটি রেলস্টেশন থেকে সীমান্ত পর্যন্ত ব্রডগেজ এবং ২ দশমিক ৩৬ কিলোমিটার রেলপথের লুপ লাইন নির্মাণে বাংলাদেশ সরকারের ব্যয় হয়েছে ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা।