হাসিনা-মোদি ভিডিও কনফারেন্স বিকালে

নিজস্ব প্রতিবেদক : আট দিনের ব্যবধানে আবারও ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মঙ্গলবার বিকাল পাঁচটায় দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনটি নির্মাণ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন।

বিকালে ভারতীয় এলওসি এর অর্থায়নে বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা-টঙ্গী সেকশনে তৃতীয় ও চতুর্থ ডুয়েলগেজ লাইন এবং টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনে ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন নির্মাণ প্রকল্প উদ্বোধন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া শিলিগুড়ি নুমালিগড় তেল শোধনাগার থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত ১৩০ কিমি ডিজেল সরবরাহর পাইপ লাইনের কাজের উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা-মোদি।

মোদি দিল্লির তার সরকারি দপ্তর সাউথ ব্লক থেকে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার গণভবন থেকে রিমোট সুইচ টিপে প্রকল্পগুলো উদ্বোধন করবেন।

শিলিগুড়ি নুমালিগড় তেল শোধনাগার থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত ১৩০ কিমি ডিজেল সরবরাহর পাইপ লাইনের কাজ শেষ করতে সময় লাগবে দুই বছর। বর্তমানে রেল ওয়াগনের মাধ্যমে ডিজেল সরবরাহ হয়। পাইপ লাইন দিয়ে সরবরাহ চালু হয়ে গেলে তার দাম অনেক কমে যাবে।

অন্যদিকে ঢাকা-টঙ্গী এবং টঙ্গী-জয়দেবপুর তৃতীয়-চতুর্থ ও পঞ্চম ডুয়েল-গেজ রেললাইন নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হলে এক দিকে যেমন ঢাকার ওপর চাপ কমবে তেমনি যাতায়াতের গতি বাড়বে। এতে ভারত-বাংলাদেশ উভয়েই উপকৃত হবে বলে সরকারি সূত্রে বলা হয়েছে।

৯৬ কিমি রেললাইন নির্মাণ হলে ঢাকা থেকে এক দিকে যেমন চট্টগ্রাম তেমনি উত্তরে আসাম পর্যন্ত লাইন বিস্তৃত হবে। এতে বাংলাদেশের পণ্য যেমন চট্টগ্রাম বন্দর হয়ে ভারতসহ দক্ষিণপূর্ব এশিয়ায় যেতে পারবে তেমনি উত্তরপূর্বে ভারতের রাজ্যগুলোয় সরবরাহ করা যাবে।

এর আগে গত ১০ সেপ্টেম্বর বিকালে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যৌথভাবে আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েল গেজ রেল লাইন নির্মাণ কাজ, কুলাউড়া-শাহবাজপুর বিভাগের রেলপথের সংস্কার প্রকল্প এবং বাংলাদেশের জাতীয় গ্রিডে ভারত থেকে ভেড়ামারায় নবনির্মিত পাঁচ শ মেগাওয়াট এইচভিডিসি ব্যাক টু ব্যাক কেন্দ্রের দ্বিতীয় ব্লকের উদ্বোধন করেন।