হাঁসে ধানের বীজ খাওয়ার প্রতিবাদ করায় কৃষকের নামে ধর্ষণ মামলা চেষ্টা

রাজাপুর (ঝালকাঠি) সংবাদদাতা : ঝালকাঠির রাজাপুরে রাজাহাঁসে আমন ধানের বীজ খেয়ে ফেলার প্রতিবাদ করার জেরে বড়ইয়া গ্রামের মৃত নুরুল হক হাওলাদারের ছেলে তিন সন্তানের জনক কৃষক মোঃ কবির হাওলাদারের(৪০) নামে মিথ্যা ধর্ষণ চেষ্টা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার সকালে স্ত্রী ও তিন সন্তান নিয়ে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে কৃষক কবির হাওলাদার এসব অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগে তিনি জানান, গত ২৬ আগস্ট বিকেলে তার জমির রোপণকৃত আমন ধানের বীজ প্রতিপক্ষের রাজাহাঁসে খেয়ে ফেললে কবির তার প্রতিবাদ করে। এ নিয়ে একই বাড়ির মৃত আনছার আলীর ছেলে প্রতিপক্ষ মন্টু হাওলাদার, মন্টুর স্ত্রী হাছিনা বেগম, ছেলে শাহিন, মেয়ে চম্পা ও মুনির সাথে ঝগড়া হয় এবং কবিরকে হত্যার হুমকি দেয়।

তাদের সাথে পেশি শক্তিতে না পেরে নিরুপায় হয়ে কবির ও তার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তার স্বার্থে ২৭ আগস্ট ঝালকাঠি ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৬ জনকে আসমী করে মামলা (নং ৪০২, ধারা ১০৭/১১৭) করেন। মামলা করায় প্রতিপক্ষরা ক্ষিপ্ত হয়ে কবিরের মামলার ৫নং আসামী বিবাহিত মুন্নী আক্তার(২২) কে স্কুল ছাত্রী সাজিয়ে তাকে দিয়ে ঝালকাঠি আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ৩০ আগস্ট একটি মিথ্যা মামলা করেন।

মামলায় ঘটনার তারিখ ২৫ আগস্ট উল্লেখ করা হলেও অাদৌও ঐদিন এমন কোন ঘটনা ঘটেনি। মামলাটি বর্তমানে বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলম মন্টুর কাছে তদন্তাধীন রয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কৃষক কবির আরও অভিযোগ করে জানান, মামলার বাদি মুন্নি নিজেকে স্কুল ছাত্রী উল্লেখ করলেও সুজন হোসেন নামে এক ব্যক্তির সাথে প্রায় ৩ বছর আগে তার বিবাহ হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও হয়রানির হাত থেকে বাচতে সংশ্লিষ্ট সকলের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।