স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া, চারদিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার

স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া, চারদিন পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার

সাভারের আশুলিয়ায় নূর বিশ্বাস (২৮) নামের এক যুবককের গলাকাটা অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নূর বিশ্বাসকে বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

সোমবার (১ আগস্ট) সন্ধ্যায় আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার দেলোয়ারের বাড়ির ভাড়া বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। দুই থেকে তিনদিন আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত নূর বিশ্বাস মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার হোগলডাঙ্গা গ্রামের বাহাদুর বিশ্বাসের ছেলে। তিনি আশুলিয়ায় ভাড়া বাসায় থেকে অটোরিকশা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

নূর বিশ্বাসের ভগ্নিপতি মো. জাকির হোসেন বলেন, গত ১৪ জুলাই পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় নূরের। বিয়ের তিন দিন পর স্ত্রীকে গ্রামে রেখে ঢাকায় আসেন নূর। পরে রোববার নূরের মোবাইল ফোন থেকে এক নারী আমাকে কল দিয়ে বলেন নূরকে একটি ঘরে আটকে রাখা হয়েছে। আপনারা এসে নিয়ে যান। আমরা গ্রাম থেকে জিরাবো এসে নূরের মরদেহ দেখতে পাই। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে।

বাড়ির মালিক দেলোয়ার হোসেন বলেন, গত বৃহস্পতিবার নূর ও এক নারী স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেন। শুক্রবার ঘর ধোয়ামোছা করে বাড়িতে ওঠেন তারা। শনিবারও নূরকে রিকশা চালাতে দেখেছি।

আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইউনুস আলী বলেন, মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। একই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা বটি জব্দ করা হয়েছে। নিহতের কথিত স্ত্রীর পরিচয় শনাক্ত করে আইনের আওতায় নেওয়ার চেষ্টা চলছে।