স্বর্ণ চোরাচালানের কথা স্বীকার করলেন সৌদি এয়ারলাইন্সের ক্রু

নিজস্ব প্রতিবেদক : হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে স্বর্ণের বারসহ গ্রেফতার সৌদি এয়ারলাইন্সের ক্রু সায়মা আক্তার স্বর্ণ চোরাচালানের কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

ঢাকা মহানগর হাকিম আতিকুল ইসলামের আদালতে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। বিমানবন্দর থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান বিষয়টি সোমবার বিকালে নিশ্চিত করেন।

মাহমুদুর বলেন, দুদিনের রিমান্ড শেষে রোববার (২৪ মার্চ) সায়মা আক্তারকে আদালতে হাজির করে জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

এর আগে ২১ মার্চ একদিনের রিমান্ড শেষে সায়মা আক্তার ও ফারজানা আফরোজকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম আসামি ফারজানা আফরোজকে কারাগারে আটক রাখা এবং সায়মা আক্তারের আবারও সাতদিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করেন।

শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ দিদার হোসাইন আসামি সায়মার দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে ফারজানাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

১৯ মার্চ তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় বিমানবন্দর থানায় করা পৃথক দুই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

জানা গেছে, ১৮ মার্চ রাত ২টার দিকে সৌদি এয়ারলাইন্সের এসভি-৮০২ ফ্লাইটটি শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এ সময় সন্দেহ হলে বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সহায়তায় ওই দুই নারী ক্রুকে আটক করে কাস্টমস হাউজ।

এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপস অ্যান্ড মিডিয়া) আলমগীর হোসেন জানান, সায়মা আক্তারের কাছ থেকে ২৬টি স্বর্ণের বার ও ফারজানা আফরোজের কাছ থেকে ১০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। তারা অন্তর্বাসে লুকিয়ে স্বর্ণের বারগুলো বহন করছিলেন।