স্থানীয়দের মাঝে চুয়েটের তৈরি স্যানিটাইজার বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) রসায়ন বিভাগের উদ্যোগে করোনাভাইরাসের প্রাথমিক প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় জীবাণুনাশক হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করা হয়েছে। এটির নামকরণ করা হয়েছে `চুয়েটাইজার’।

কর্তৃপক্ষের দাবি এটি তৈরিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) অনুমোদিত প্রস্তুত প্রণালী ব্যবহার করা হয়েছে। স্যানিটাইজার তৈরিতে তারা ব্যবহার করেছেন- আইসোপ্রোপানল, গ্লিসারল ও হাইড্রোজেন পারক্সাইড।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের ল্যাবে ১০০মিলি সাইজের প্রায় ৩০০ ইউনিট স্যানিটাইজার তৈরি করা হয়েছে। এতে নেতৃত্ব দিয়েছেন চুয়েটের রসায়ন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. রাজিয়া সুলতানা। তাকে সহায়তা করেছেন বিভাগের শিক্ষকমণ্ডলী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

রোববার (২২ মার্চ) চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম এই স্যানিটাইজারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও বিনামূল্যে বিতরণ করেন।

এ সময় প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল করিম, সাবেক ডীন অধ্যাপক ড. রনজিৎ কুমার সূত্রধর, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. এ.এইচ. রাশেদুল হোসাইন, ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. আয়শা আখতার ও অধ্যাপক ড. জি.এম. সাদিকুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. মো. সানাউল রাব্বী, ছাত্রকল্যাণ উপ-পরিচালক ড. মো. আরাফাত রহমান এবং উপ-পরিচালক জনাব হুমায়ুন কবিরসহ রসায়ন বিভাগের সম্মানিত শিক্ষকমণ্ডলী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় উপাচার্য বলেন, আমরা বর্তমানে একটি বৈশ্বিক মহামারি মোকাবিলা করছি। সরকারের একার পক্ষে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। সেজন্য আমাদের সবার উচিত যার যার অবস্থান থেকে সচেতনতার পাশাপাশি করোনাভাইরাসের আক্রমণ ঠেকাতে ভূমিকা রাখা। চুয়েটের রসায়ন বিভাগের হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি সে রকম একটি উদ্যোগ। আমরা এসব স্যানিটাইজার বিনামূল্যে সাধারণ মানুষের মাঝে বিতরণ করে আমাদের অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখতে চাই।