সেন্টমার্টিনে আটকা পড়া পর্যটকরা ফিরলেন

সেন্টমার্টিনে আটকা পড়া পর্যটকরা ফিরলেন

কক্সবাজার সংবাদদাতা : সতর্ক সংকেত কেটে যাওয়ায় সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে টেকনাফের দমদমিয়া জেটি ঘাট থেকে প্রায় ২ হাজার পর্যটক নিয়ে পাঁচটি জাহাজ সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। আবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে টেকনাফের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় জাহাজগুলো। এতে বুধবার আটকা পড়া পর্যটকদেরও পাঁচটি জাহাজ ভাগাভাগি করে ফিরিয়ে আনছে।

বৃহস্পতিবার সেন্টমার্টিনে যাওয়া জাহাজগুলো হলো- কেয়ারি সিন্দাবাদ, এমভি আটলান্টিক ক্রুজ, বে-ক্রুজ, কেয়ারি ক্রুজ ও এলসিটি কাজল।

জানা গেছে, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সমুদ্র বন্দর ও উপকূলীয় এলাকা সমূহে গত মঙ্গলবার রাত থেকে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি ছিল। এ কারণে বুধবার কোনো ধরনের পর্যটকবাহী জাহাজ বা জলযানকে সেন্টমার্টিন যেতে দেয়া হয়নি। এছাড়া মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে থাকতে বলা হয়। এর ফলে সেন্টমার্টিন দ্বীপে ভ্রমণে গিয়ে রাত্রি যাপনে থেকে যাওয়া হাজারো পর্যটক আটকা পড়ে।

পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের টেকনাফের ব্যবস্থাপক মো. শাহ আলম বলেন, সতর্ক সংকেত কেটে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। দ্বীপে ভ্রমণে গিয়ে আটকা পড়া হাজারো পর্যটককে নতুনদের সঙ্গে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। সন্ধ্যায় জাহাজগুলো ঘাটে এসে পৌছাবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হাসান জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল। সতর্ক সংকেত কেটে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জাহাজ চলাচল করতে বলা হয়। আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করে যান চলাচল বন্ধ বা স্বাভাবিক রাখা হবে। বুধবার আটকা পড়া পর্যটকদের আজ নিরাপদে নিয়ে আসা হয়েছে বলেও জানান তিনি।