সূচক বেড়েছে, কমেছে লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : টানা তিন কার্যদিবস দরপতনের পর বুধবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। তবে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ।

মূল্যসূচকের পাশাপাশি এদিন ডিএসইতে যে সংখ্যক প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে, বেড়েছে তার থেকে বেশি। বজারটিতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৬৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৩৬টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির দাম।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৬ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৭৪৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৩১১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৭১২ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৯০১ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। সে হিসাবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় লেনদেন কমেছে ১৮৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ফরচুন সুজ’র শেয়ার। কোম্পানিটির ৩৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা মুন্নু সিরামিকের ৩৫ কোটি ১৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২৪ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, নূরানী ডাইং, মুন্নু জুট স্টাফলার, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার এবং গ্রামীণফোন।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ২৬ পয়েন্ট বেড়ে ১০ হাজার ৬৪৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ২৭ কোটি ২১ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৫৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১২৮ টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৯৮টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির।