সাড়ে পাঁচ মাসে জন্ম নেওয়া দুই বোনের ৩য় জন্মদিন

ফিচার ডেস্ক :নানান কারণে সময়ের অনেক আগেই জন্ম নেয় অপরিণত শিশুরা। এসব শিশুদের বেঁচে থাকার সম্ভাবনা থাকে খুবই ক্ষীণ। এরমধ্যে যারা সৌভাগ্যবান তারাই মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে বেঁচে থাকতে পারে। তেমনি দুই শিশু কামব্রি ইওল্ডট ও কিলি ইওল্ডট। যারা মায়ের গর্ভে ছিলেন মাত্র ২২ সপ্তাহ অর্থাৎ মাত্র সাড়ে পাঁচ মাস।

কামব্রি ও কিলির বাঁচার আশা ডাক্তাররা একরকম ছেড়েই দিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের সেই দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তি দিয়ে স্বাভাবিক হয়ে ওঠে এই দুই বোন। ২৪ নভেম্বর তারা তাদের ৩য় জন্মদিন পালন করেছেন পরিবারের সঙ্গে।

২০১৮ সালের ২৪ নভেম্বর আমেরিকার আইওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিড ফ্যামিলি চিলড্রেন হাসপাতালে জেড ইওল্ডট সাড়ে পাঁচ মাস গর্ভধারণের পর যমজ দুই শিশুর জন্ম দেন। এরপর নিওনেটাল ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে তাদের রাখা হয় চার মাস।

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড তাদের বিশ্বের সবচেয়ে প্রিম্যাচিউর যমজ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। এখন তারা স্বাভাবিক আর দশটি শিশুর মতোই বড় হচ্ছে। কামব্রি ও কিলি নাচতে এবং ছবি আঁকতে পছন্দ করে। কামব্রি কিছুটা টমবয় টাইপের, আর কিলি অন্য সাধারণ মেয়েদের মতোই লাজুক।

জেড যখন ১৬ সপ্তাহের গর্ভবতী তখনই তিনি জানতে পারেন যমজ সন্তানের মা হতে যাচ্ছেন তিনি। তবে গর্ভে থাকা ভ্রূণের স্বাভাবিক গঠন হচ্ছে না। তার গর্ভপাতেরও সম্ভাবনা রয়েছে। এরপর ২২ সপ্তাহ পার হতেই জেডের অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কামব্রি এবং কিলির জন্ম হয়।

জন্মের পরই ক্যামব্রি এবং কিলির গুরুতর ব্রঙ্কোপলমোনারি ডিসপ্লাসিয়া ধরা পড়ে। একটি দীর্ঘস্থায়ী ফুসফুসের রোগ। এর ফলে শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। তাদের প্রায় সারা জীবন অনুনাসিক ক্যানুলাসের মাধ্যমে অক্সিজেন গ্রহণ করতে হবে। তবে দুই বছর বয়স হতেই তারা স্বাভাবিকভাবেই শ্বাস নিতে পারছিল। তাদের আরও দুটি ভাইবোন রয়েছে।