সাবেক ছাত্রলীগ নেতাকে মারধরের ঘটনা তদন্তে কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক : লিফটে ওঠা নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ সভাপতি রুহুল আমিনকে মারধরের ঘটনায় চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিফটে ওঠা নিয়ে কথা কাটাকাটির জেরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস সংগঠনটির সাবেক সহ-সভাপতি রুহুল আমিনকে মারধর করে বলে অভিযোগ উঠে। এ ঘটনা তদন্তের জন্য এই কমিটি করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞাপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ২৭ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে ঢামেক হাসপাতালে সংঘটিত অনাকাঙিক্ষত ঘটনার সুষ্ঠু ও সঠিক তদন্তের জন্য চার সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হলো। দুই কার্যদিবসের মধ্যে কমিটির সদস্যদের সুপারিশসহ তদন্ত রিপোর্ট সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তদন্ত কমিটির সদস্যরা হলেন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শওকতুজ্জামান সৈকত, সাবেক সহ সভাপতি আরেফিন সিদ্দিকী সুজন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তানজিল ভূঁইয়া তানবীর, জিয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু সালমান প্রধান শাওন।

রুহুল আমিন অভিযোগ করে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, সঞ্জিত আমাকে মারতে মারতে আট তলা থেকে নিচে নিয়ে আসে। সে আমাকে শিবির বলে গালাগালও করেছে।

তবে সঞ্জিত এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বলেছেন, তিনি রুহুল আমিনকে মারেননি। তবে ‘পোলাপানের সাথে’ তার সমস্যা হয়েছে বলে শুনেছেন। তখন তিনি গিয়ে ঝামেলা ‘মিটিয়ে দিয়ে’ এসেছেন।

Inline
Inline