শাহ্রাস্তিতে আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিক্ষোভ মিছিল

নাগরিক অধিকারের উপর প্রভাব সুস্থ মানুষের কাজ নয়-চেয়ারম্যান প্রার্থী -গাজী মোঃ বাহার উদ্দিন বোরহান
হাসানুজ্জামান, চাঁদপুর থেকে : চাঁদপুরের শাহ্রাস্তিতে ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে মেহের দক্ষিন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী গাজী মোঃ বাহার উদ্দিন বোরহান এক বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করেন। গতকাল ১৬ মার্চ বুধবার বিকেলে ওই ইউনিয়নের ভোলদিঘী বাজারের বিভিন্ন রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিলটি প্রদক্ষিন করে। জানা যায়, গত ১৫ মার্চ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভোলদিঘী বাজারে গাজী মোঃ বাহার উদ্দিন বোরহানের সমর্থক ইউনিয়ন তাঁতীলীগের সভাপতি সোহরাব হোসেন, সাধারন সম্পাদক শাহ্পরান ও সাংগঠনিক সম্পাদক মহিন উদ্দিনসহ আরও অনেককে প্রকাশ্যে হুমকি-ধমকি প্রদান করেন বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সফি আহমেদ মিন্টু। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে অপর প্রার্থী গাজী মোঃ বাহার উদ্দিন বোরহানের নেতৃত্বে এক বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।
এ ব্যাপারে বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজক চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী গাজী মোঃ বাহার উদ্দিন বোরহান বলেন, গত ৫ মার্চ শনিবার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় দলীয় প্রতীক নৌকা প্রত্যাশী ৫ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ফরম সংগ্রহ করেন তাদের সাথে আমিও একটি ফরম সংগ্রহ করি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ায় বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও আসন্ন ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সফি আহমেদ মিন্টু আমাকে যা-তা বলে বেড়াচ্ছেন। আমি ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করছি অথচ তিনি দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করে এবং নাগরিক অধিকারের উপর প্রভাব বিস্তার করে আমার সমর্থকদের হুমকি-ধমকি দিয়েছেন-যা সুস্থ মানুষের কাজ নয় বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বিক্ষোভে অংশ গ্রহন করা উপজেলা তাঁতীলীগের আহ্বায়ক মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের নীতি নির্ধারক যারা- তারা যদি এ ঘটনার সুষ্ঠ সমাধান না করেন তাহলে ইউনিয়ন যুবলীগ, তাঁতীলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগসহ অন্যান্য অংগ সংগঠনের নেতা-কর্মীর সমন্বয়ে বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান সফি আহমেদ মিন্টুর বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে এবং আসন্ন ইউপি নির্বাচনে দলীয় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে বলে তিনি জানান।
ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক মোঃ কামাল হোসেন বলেন, যেখানে আওয়ামীলীগ কাউকে ছোট করে দেখেনা সেখানে কেন তিনি ছোটদের উচকে দিয়ে কথা বলেন-তা আমাদের বোধগম্য নয়। শ্রদ্ধার জায়গাটা করে নিতে হয় তাতেই অন্যেরা অকাতরে প্রবেশ করবে। অন্যথায় হবে বিক্ষোভ, বিদ্রোহ ও বিরোধী আচরন। যা মূল দলের জন্য অত্যান্ত ক্ষতিকর।
এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান সফি আহমেদ মিন্টুর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে সংযোগ পাওয়া যায়নি।
বিক্ষোভ মিছিলে অন্যান্যদেও মধ্যে অংশ নেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ, ইউনিয়ন তাঁতীলীগের সভাপতি সোহরাব হোসেন , সাধারন সম্পাদক শাহ পরান, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিন উদ্দিন, ছাত্রলীগের দুলাল, সোহেল, সোহাগ, সাদ্দাম, আলমগীর, হাবীব, রিপন, পারভেজ, নাছির, শষাহাদাত, সুমনসহ আরও অনেকে।