শার্শায় বেতনা নদী থেকে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার

শার্শায় বেতনা নদী থেকে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার

 

এস এম মারুফ, ক্রাইম রিপোর্টারঃ যশোরের শার্শায় নিখোঁজের এক দিন পর বেতনা
নদীর কচুরিপানার নিচ থেকে নাসির মোল্লা (৪০) নামে এক চাউল ব্যবসায়ীর
মরদেহ উদ্ধার করেছে খুলনা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টার সময় উপজেলার নারায়নপুর গ্রাম সংলগ্ন বেতনা নদী
থেকে এ মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত নাসির মোল্লা বরিশাল জেলার কেউতা গ্রামের জয়নুদ্দীন মোল্লার ছেলে।
সে স্ত্রী ও তিন সন্তানকে নিয়ে শার্শা উপজেলার বৃত্তিবারিপোতা গ্রামে
বসবাস করতেন এবং নারায়নপুর বাজারে তিনি দীর্ঘদিন ধরে চাউলের ব্যবসা করে
আসছিলেন।

এর আগে গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে নিখোঁজ হয় নাসির মোল্লা নামের এই
ব্যক্তি। এসময় নাসির মোল্লার পরিবার চারদিকে অনেক খোঁজ খবর নিলেও তার কোন
সন্ধান না পেয়ে প্রশাসনের সরনাপন্ন হন।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সকালে নাসির উদ্দীন বেতনা নদী থেকে কচুরিপানা
তোলার কাজ করছিলেন। কাজের যে কোন এক সময় তিনি পানির তলে ডুবে যান। তারপর
থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলোনা। শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রশাসন সহ বেনাপোল
ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নির্ধারীত যায়গা পরিদর্শন করেন এবং খুলনা ফায়ার
সার্ভিসের ডুবুরি দলকে অবহিত করলে আজ শনিবার সকালে ডুবে যাওয়া স্থান থেকে
১শত গজ দূরে কচুরিপানার তলা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করতে সক্ষম হন খুলনা
ডুবুরিদল।

এসময় খুলনা ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দলের সাব অফিসার মোশাররফ হোসেন, টিম
লিডার সাইদুল ইসলাম সহ বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের অফিসার রতন কুমার দেবনাথ বলেন,
গতকাল এক ব্যক্তি বেতনা নদীতে ডুবে গেছে এমন খবর পেয়ে সন্ধ্যায় আমরা
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অনুসন্ধান চালায়। না পেয়ে বিষয়টি খুলনা ফায়ার
সার্ভিসের ডুবুরি দলকে অবহিত করলে আজ সকালে তাদের সমন্বয়ে মাত্র ২৫ মিনিট
তল্লাশি করে মরদেহটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। মরদেহটি পরিবারের কাছে
হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে তিনি পানিতে ডুবেই
মৃত্যু বরণ করেছেন। হত্যার কোন আলামত পাওয়া যায়নি।