মরণোত্তর চক্ষুদান করলেন অভিনেতা জামশেদ শামীম

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা : মরণোত্তর চক্ষুদান করলেন অভিনেতা জামশেদ শামীম। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে সন্ধানী জাতীয় চক্ষুদান সমিতির তালিকাভুক্ত চক্ষুদাতা হিসেবে নাম লেখান এ অভিনেতা। তার মৃত্যুর পরপরই সমিতির পক্ষ থেকে চোখ দুটি সংগ্রহ করা হবে।

চক্ষুদান সম্পর্কে জামশেদ শামীম বলেন, ‘এই চোখের প্রেমে অনেকেই পড়েছে। এই চোখ ‌দুটি শুধুই সুন্দর খুঁজছে পৃথিবীর বুকে। আমার মৃত্যুর পর যদি সেই চোখ দুটি দিয়ে আরেকজন মানুষ সব সুন্দর দেখতে পায়, তাতে আমি আনন্দ পাব।’

জামশেদ শামীম আশির দশকে গোপালগঞ্জ সদর থানার অন্তর্গত এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তার বাবা পেশায় একজন সেনা কর্মকর্তা। তিন ভাই বোনের মধ্যে শামীম পরিবারের বড় সন্তান।

আই ডোনেশন বিডি থেকে শামীমকে পাঠানো রেজিস্ট্রেশন কার্ডে লেখা, ‘আমি জামসেদ শামীম। সন্ধানী জাতীয় চক্ষুদান সমিতির একজন তালিকাভুক্ত চক্ষুদাতা। আমার মৃত্যুর পরই সন্ধানীকে জানিয়ে দিন এবং চক্ষু সংগ্রহে সন্ধানীকে সহযোগিতা করুন।’

জামশেদ শামীম দেশ নাটক থিয়েটারে যুক্ত থাককালীন অবস্থায় চলচ্চিত্রে পা রাখেন। ‘দহন’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের মনে জায়গা নেয় অভিনেতা জামশেদ শামীম। পরে স্বল্পদৈর্ঘ্য ‘এক যে ছিলো গ্যাংস্টার’ ও মিউজিক্যাল ফিল্ম ‘জায়গা দিও’র মাধ্যমে মিডিয়া পাড়ায় তার স্থান পাকাপোক্ত করতে সক্ষম হন।

এছাড়া তিনি আরও কিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য নাটকে কাজ করেছেন। খুব শীগ্রই দুটি সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করার কথা রয়েছে তার।