ভয়াবহ বায়ুদূষণের কবলে চট্টগ্রাম

National desk:

ভয়াবহ বায়ুদূষণের কবলে বন্দর নগরী চট্টগ্রাম। ওয়াসাসহ সরকারি বিভিন্ন সেবা প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়হীন রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িতে পুরো নগরী এখন ধুলাময়। অনেক এলাকাতেই দিনের বেলায় লাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে হচ্ছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন পথচারী ও নগরবাসী। তবে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন জানান, বায়ুদূষণ কমাতে কাজ শুরু হয়েছে।

শীতকাল আসার সাথে সাথেই নগরীতে বেড়েছে বায়ুদূষণের মাত্রা। নগরীর বহদ্দারহাট, কালুরঘাট, জামাল খান, আগ্রাবাদ এক্সেস রোড, চকবাজারসহ বিভিন্ন সড়কে এখন ধুলাবালির রাজত্ব। ব্যাপক দূষণে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের শ্বাস-প্রশ্বাস নেয়াই কষ্টকর হয়ে পড়েছে। বাধ্য হয়ে মুখে মাস্ক পরে চলাচল করতে হচ্ছে পথচারীদের। সেই সাথে বিবর্ণ হয়ে পড়েছে রাস্তার পাশের সব গাছপালা, আবাসিক ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানও।

গত কয়েক বছর ধরে বন্দর নগরীতে চলছে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড। সেই সঙ্গে চলছে ওয়াসাসহ সেবা সংস্থাগুলোর যত্রতত্র রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি। সেবা সংস্থারগুলোর মধ্যে কোনো সমন্বয় না থাকায় বায়ুদূষণ মারাত্মক রূপ নিয়েছে বলে মনে করেন নগর পরিকল্পনাবিদ আশিক ইমরান।

ডা. মো. মাহাবুব উল আলম চৌধুরী বলেন, ধুলাবালির কারণে চর্মরোগ ও শ্বাসকষ্ট থেকে শুরু করে ক্যান্সারের মতো রোগের আশঙ্কা রয়েছে।

এ অবস্থায় সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে বায়দূষণ কমানোর আশ্বাস দিয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

আর পরিবেশ অধিদপ্তরের তথ্য মতে, বর্তমানে নগরীতে বায়ুদূষণের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে তিনগুণ বেশি।

Courtesy: somoy tv