বটিয়াঘাটায় সংঘর্ষের ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে দেখতে গেলেন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার মহাসচিব সাজ্জাদুল কবীর

বটিয়াঘাটায় সংঘর্ষের ঘটনায় আহতদের হাসপাতালে দেখতে গেলেন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার মহাসচিব সাজ্জাদুল কবীর

স্টাফ রিপোর্টার : খুলনা জেলার বটিয়াঘাটায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষে আহত ৭ জনকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার মহাসচিব সাজ্জাদুল কবীর। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন খুলনা জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক আ: রাজ্জাক শেখসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, জমি জমা সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ৭নং আমিরপুর ইউনিয়নের বড় কড়িয়া গ্রামের মৃত: নুরুল হকের পুত্র মনিরুল ইসলাম(৪০), মৃত: লতিফ মল্লিকের পুত্র আ: হামিদ(৫৫), মৃত: দীন আলি শেখ এর পুত্র ছবেদ আলি শেখ(৬০), মৃত: নুরুল হক এর পুত্র নজরুল ইসলাম(৬০), মনিরুল ইসলামের পুত্র ওহিদুল ইসলাম(৩৫), মৃত: আক্কাছ শেখ এর পুত্র আ: আহাদ শেখ(৬৫)কে বিপক্ষীয় জবিউল্লাহ, সাইদ, ওবায়দুল, আরিফুল, জাহিদুল, সর্বপিতা মৃত: আফছার শেখ, আশরাফুল, ফয়সাল শেখ, উভয় পিতা সাইদ শেখ, শাহাবুদ্দিন, শিহাবুদ্দিন, আসাদ, সর্বপিতা আনসার শেখ, আসলাম, আসাদ উভয় পিতা মৃত: শের আলী, ইয়ার আলী হাফিজ শেখ পিতা মৃত: মতি শেখ, ফজলু পিতা আবু বক্কর শেখ, মাহাবুব, আতাউর উভয় পিতা: ইতাস শেখ , আরা শেখ, বাশার শেখ উভয় পিতা মনতাজ শেখ, আলাউদ্দিন পিতা বালাগ উদ্দীন গং অতর্কিতে হামলা চালিয়ে গুরুত্বর জখম করে। তাদের মধ্যে মনিরুল ইসলামের অবস্থা আশংকা জনক। সংঘর্ষে বিপক্ষীয় ১জন আহত হয় যার নাম মামরুল ইসলাম(৪৫) পিতা মৃত: আরশাদ আলী।
রবিবার বেলা ১২টায় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার মহাসচিব সাজ্জাদুল কবীর খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান আহতদের দেখতে। এসময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার খুলনা জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক আ: রাজ্জাক শেখ, সহ সাধারন সম্পাদক মো: শহীদুল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় মন্ডল, প্রচার সম্পাদক নাঈমুজ্জামান শরীফ, পাঠাগার সম্পাদক রায়হান খান ও মানবাধিকার সম্পাদক নাঈমা জামান চৈতী। মহাসচিব এসময় আহতদের চিকিৎসার ব্যপারে খোজ খবর নেন।